ব্রেকিং নিউজঃস্তব্ধ অস্ট্রেলিয়া,ম্যাক্সওয়েলের পর ছিটকে গেলেন সেঞ্চুরি করা No.১ ব্যাটসম্যান !

অস্ট্রেলিয়া দলের বিশ্বকাপ অভিযান খুব ভালো না হলেও পরের দিকে তাদের প্লেয়াররা যে ধরনের ফরম পেয়েছে তাতে বিশ্বকাপে তাকে যোগ্য দাবিদার হিসেবে মনে করছিল অনেক ক্রিকেট ভক্তরা কিন্তু এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে অস্ট্রেলিয়া একের পর এক ঝটকা খাচ্ছে যেখানে প্রথমে ম্যাক্সওয়েল ছিটকে গেছে আপাতত তাদের পরবর্তী ম্যাচ থেকে যেখানে চোট পেয়েছেন ম্যাক্সওয়েল। আর এবার অস্ট্রেলিয়া দলের প্রধান ব্যাটসম্যান যিনি এই টুর্নামেন্টের সেঞ্চুরি পর্যন্ত করেছেন তিনি বাড়ি চলে গেছেন কোন ব্যক্তিগত কারণে আর যাকে বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলোতে পাওয়া নিয়েও ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে সুতরাং অস্ট্রেলিয়া এখন চরম সমস্যায়।

২০২৩ বিশ্বকাপের মধ্যেই বড় ধাক্কা খেল টিম অস্ট্রেলিয়া। দেশে ফিরে গেলেন মিচেল মার্শ। টিম অস্ট্রেলিয়ার কাছে এটি আরও একটি বড় ধাক্কা। মিচেল মার্শ ব্যক্তিগত কারণে দেশে ফিরেছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। শনিবার আমদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার পরবর্তী ম্যাচটি খেলতে হবে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ইনজুরির পর মার্শের বাদ পড়া সত্যিই অস্ট্রেলিয়ার জন্য বড় ধাক্কা। আমরা আপনাকে বলি, সোমবার গলফ খেলতে গিয়ে চোট পেয়েছিলেন ম্যাক্সওয়েল এবং এই চোটের কারণে তিনি ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলতে পারবেন না। এদিকে মার্শ ব্যক্তিগত কারণে দেশে ফিরেছেন এবং ২০২৩ বিশ্বকাপ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাইরে চলে গিয়েছেন।

```

বৃহস্পতিবার মার্শের ঘরের ফেরার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। বোর্ড জানিয়েছে, বুধবার রাতেই অস্ট্রেলিয়ায় ফিরেছেন মার্শ। সিএ জানিয়েছে, ‘অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার মিচেল মার্শ ব্যক্তিগত কারণে গত রাতে আইসিসি পুরুষ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০২৩ থেকে দেশে ফিরেছেন। দলে তার ফেরার সময়সীমা এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।এটি সম্পর্কে অন্য কোন বিবরণ নেই।’ তবে দলের জন্য সুখবর হল চোট কাটিয়ে দলে ফিরতে প্রস্তুত মার্কাস স্টইনিস। এই ইনজুরির কারণে তিনি নেদারল্যান্ডস ও নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ দুটি ম্যাচ খেলতে পারেননি।

এদিকে ম্যাক্সওয়েল এবং মার্শ ছিটকে যাওয়ার পরে, ক্যামেরন গ্রিন এবং মার্নাস ল্যাবুশানের খেলা নিশ্চিত।ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের জন্য অস্ট্রেলিয়ার মাত্র ১৩ জন ফিট খেলোয়াড় থাকবে, শন অ্যাবট এবং অ্যালেক্স কেরি একমাত্র অন্য খেলোয়াড় হিসেবে দলে থাকবেন। মার্শের অনুপস্থিতিতে স্টিভ স্মিথ তার প্রিয় পজিশন নম্বর-৩ এ খেলার সুযোগ পাবেন। তবে মার্শ ও ম্যাক্সওয়েলের অনুপস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়া কীভাবে দলের ভারসাম্য বজায় রাখবে সেটাই বড় প্রশ্ন। এই সময়ে অস্ট্রেলিয়া দলের প্রথম একাদশ ও দলের ব্যাটিং লাইন আপের গঠন দেখতে চাইবে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব।

```

মিচেল মার্শ এখন পর্যন্ত চলতি বিশ্বকাপে ৩৭-এর উপরে গড়ে মোট ২২৫ রান করেছেন। এবং দুটি উইকেট নিয়েছেন তিনি। বেঙ্গালুরুতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে তার সেরা প্রচেষ্টা যখন তিনি একটি দুর্দান্ত ১২১ রান করেছিলেন। অস্ট্রেলিয়াকে তাদের শেষ দুটি লিগ ম্যাচ খেলতে হবে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে যেটি অনুষ্ঠিত হবে ৪ নভেম্বর এবং বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ১১ নভেম্বর নিজেদের পরের ম্যাচ খেলবে অস্ট্রেলিয়া।

বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল কনফার্ম করতে হলে অস্ট্রেলিয়াকে তাদের পরবর্তী ইংল্যান্ড ম্যাচে জয়লাভ করাটা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ যদিও তারপরে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জয়লাভের সুযোগ থাকছে তাদের।