লজ্জার!অন্য প্লেয়ারের গার্লফ্রেন্ডের সাথে বাবর আজমের সেক্স চ্যাট ভাইরাল!দেখুন ভিডিও

ফের নয়া বিতর্কে নাম জড়াল পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমের। এর আগে এক মহিলাকে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছিল বাবর আজমের বিরুদ্ধে। থানায় অভিযোগও হয়েছিল।এবার ফের এক মহিলার সঙ্গে সেক্স চ্যাট করার অভিযোগ উঠল পাক অধিনায়কের বিরুদ্ধে। সবথেকে গুরুতর বিষয় বলছেন যার সঙ্গে বাবর সেক্স চ্যাট করছিলেন তিনি পাকিস্তানের অপর এক ক্রিকেটারের বান্ধবী।

বিশ্ব ক্রিকেটের অত্যন্ত জনপ্রিয় পাক ক্রিকেট তারকা বাবার আজম ৷ বাবরের পছন্দের শর্ট কবার ড্রাইভ ৷ সেই প্রিয় শর্টও এখন পড়ুয়াদের পাঠ্য বইয়েটি২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমের অবদান এটুকুই। গতবার টি২০ বিশ্বকাপে অবশ্য বাবর সর্বাধিক ৩০৩ রান করেছিলেন। কিন্তু এবার তিনি ফ্লপ।ফাইনালে পৌছালেও এবারের টি-২০ বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে এখনও চেনা ছন্দে পাওয়া যায়মি পাকিস্তান অধিনায়ককে।

হামিজা মুখতারের আরও দাবি ছিল, বাবর বছরের পর বছর তাঁকে ব্যবহার করেছেন। নিজের যাবতীয় খরচের টাকা নিয়েছেন। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করেছেন। ঘটনার জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। তাঁর মধ্যেই আবার শোনা গিয়েছিল, নিজের বোনকে বিয়ে করতে চলেছেন বাবর। আর এবার তাঁর জীবনের অন্তরঙ্গ ভিডিয়ো এবং ‘সেক্স চ্যাট’ প্রকাশ্যে আসা নিয়ে শোরগোল পড়ে গেল।

তবে মহিলার সঙ্গে যৌনতা এবং বিতর্কিত জীবনযাপন নিয়ে বাবর আগেও শিরোনামে এসেছেন। অতীতে হামিজা মুখতার নামে এক মহিলাকে নির্যাতন করার অপরাধে নাম জড়িয়েছিল বাবরের। বাবরের আচরণ নিয়ে থানায় অভিযোগও জানিয়েছিলেন সেই মহিলা। হামিজার অভিযোগ ছিল, বাবর তাঁর উপর যৌন নির্যাতন করতেন এবং জোর করে গর্ভপাত করাতে বাধ্য করেছিলেন! সেই ঘটনা নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেটে কার্যত হইচই পড়ে গিয়েছিল। সেই মহিলা জানিয়েছিলেন, পাকিস্তানের তারকা ব্যাটারের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক সেই ২০১০ সাল থেকে। তখনও বাবরের এত খ্যাতি ছিল না। স্কুলে পড়াকালীনই বাবর তাঁকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। এমনকী, তাঁরা পালিয়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন!

তবে শুধু মাঠের বাইরে নয়, বাইশ গজের যুদ্ধেও অধিনায়ক হিসেবে চূড়ান্ত ‘ফ্লপ’ বাবর। ফলে অধিনায়কত্ব নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। ২০২২ সালের শুরু থেকে পাকিস্তান ১০টি টেস্ট খেলেছে। এরমধ্যে মাত্র একটি টেস্ট জিতেছে তাঁর দল। গত বছর গলে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছিল পাকিস্তান। এরপর বাকি ৯টি টেস্টের মধ্যে ৫টিতে হেরেছে পাক দল। ড্র হয়েছে ৪টি টেস্ট। দেশের মাটিতে ৮টি টেস্ট খেলেছে পাকিস্তান। একটিতেও জিততে পারেনি তারা। হেরেছে ৪টি। ড্র করেছে ৪টি। এই পরিসংখ্যান আরও খারাপ হতে পারত। যদিও নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দু’টি টেস্টে ব্যাট হাতে রুখে না দাঁড়াতেন সরফরাজ আহমেদ। তাঁর লড়াকু ইনিংসের জন্য ম্যাচ ড্র করে মান বাঁচিয়েছিল পাকিস্তান। আর তাঁর সেক্স স্ক্যান্ডাল নিয়ে হইচই শুরু হয়ে গেল।