গাড়ি-বাইক চালকদের জন্য খুশির খবর, বড়োসড়ো ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় পরিবহনমন্ত্রী

কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক মন্ত্রী (Road Transport and Highways of India) নীতিন গড়করি (Nitin Gadkari) বলেছেন, আগামী এক বছরে ইলেকট্রিক গাড়ির দাম পেট্রোল গাড়ির সমান হবে। বৈদ্যুতিক গাড়ি আসার পর থেকে মানুষের অনেক সুবিধা উপভোগ করতে পেরেছেন। আপনিও যদি গাড়ি কেনার পরিকল্পনা করে থাকেন এবং বিশেষ করে বৈদ্যুতিক গাড়ি কেনার পরিকল্পনা করেন, তাহলে এই খবরটি খুবই উপকারী।

তাহলে জেনে নেওয়া যাক এর সম্বন্ধে।এই খবরটি গাড়ি ও বাইক আরোহীদের জন্য খুবই স্বস্তিদায়ক। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করি (Nitin Gadkari) বলেছেন যে প্রযুক্তি এবং সবুজ জ্বালানীতে দ্রুত অগ্রগতি বৈদ্যুতিক অটোমোবাইলের দাম কমিয়ে আনবে। অর্থাৎ এতে উপকৃত হবেন সাধারণ মানুষ। আগামী দুই বছরে ইলেকট্রিক গাড়ির দাম পেট্রোল চালিত গাড়ির সমান হবে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেছিলেন যে এটি আগামী সময়ে একটি বিপ্লব আনতে পারে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গড়করিও সাংসদদের হাইড্রোজেন প্রযুক্তি গ্রহণের আহ্বান জানান। তিনি সংসদ সদস্যদের নিজ নিজ এলাকার পয়োনিষ্কাশন জলকে সবুজ হাইড্রোজেনে রূপান্তরের উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন যে হাইড্রোজেন শীঘ্রই সস্তার জ্বালানী বিকল্প হবে।

নীতিন গড়করি (Nitin Gadkari) বলেন, ‘লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির দাম দ্রুত কমছে। আমরা জিঙ্ক-আয়ন, অ্যালুমিনিয়াম-আয়ন, সোডিয়াম-আয়ন ব্যাটারি তৈরি করছি। সর্বোচ্চ দুই বছরের মধ্যে ইলেকট্রিক স্কুটার, গাড়ি, অটোরিকশার দাম পেট্রোল চালিত স্কুটার, গাড়ি, অটোরিকশার (Electric Vehicles) সমান হবে। বৈদ্যুতিক গাড়ি আসার পর থেকে মানুষের অনেক সুবিধা উপভোগ করতে পেরেছেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মতে, ‘এর সুবিধা হবে যে আজ যদি আপনি পেট্রোলে ১০০ টাকা খরচ করেন, তাহলে বৈদ্যুতিক গাড়ি চালানোর এই খরচ কমে ১০ টাকায় নেমে আসবে।’

এটি লক্ষণীয় যে কিছু দিন আগে নীতিন গড়করি সবুজ হাইড্রোজেন জ্বালানী গাড়ি লঞ্চ করেছিলেন। আসলে, নিতিন গড়করি ক্রমাগত বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রচারের চেষ্টা করছেন। একটি সবুজ হাইড্রোজেন চালিত গাড়ির দাম প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকার কম। যেখানে একটি পেট্রোল গাড়ির দাম প্রতি কিলোমিটারে ৫-৭ টাকা। এখন সেখানে কোম্পানিটি ইলেকট্রিক গাড়ি নিয়েও কাজ করছে।