সবাই তাকে নিয়ে মজা করে,তবু একটা কারণেই গোঁফ কাটেন না এই মহিলা,সেলুট জানাচ্ছে নেটিজেনরা

প্রাচীন কাল থেকেই মেয়েদের সৌন্দর্যের উপর সকলের নজর থাকে আর সেই কারণে মেয়েরাও নিজেদের রূপের চর্চা অনেক সময় করে থাকে নিজেদেরকে কিভাবে আরো সুন্দর দেখানো যায় তার চেষ্টা করে থাকে। আর প্রাচীন কাল থেকে চলতে থাকা এই পরম্পরা বর্তমান যুগে একটা বাস্তব আর সেই কারণেই মেয়ের শিক্ষা চাকরি এই সব কিছুর উপরেও ভারী পড়ে যায় একটা সুন্দর দেখতে মুখ।

এমনকি আজকালকার দিনে মহিলাদের সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য বাজারে বিভিন্ন ধরনের ফেসিয়াল ফেসপ্যাক অনেক কিছুই এসে গেছে যা একটা বড় সংখ্যক মহিলা ব্যবহার করে থাকেন কিন্তু আজকে এমন একজন মহিলার কথা আপনাদেরকে জানাবো যে কখনোই নিজের গোঁফ কাটেন না এবং তিনি তার জন্য গর্ব পর্যন্ত করেন কিন্তু কেন এমনটা?

এই মহিলার নাম হলো সাইজা এবং তার বাড়ি ভারতের কেরালা রাজ্যে। তাকে তার আশেপাশের লোকজন গোঁফ বালা কাকিমা বলে ডেকে থাকেন। কিন্তু তার সত্বেও তিনি তার গোঁফ কখনো কাটেন না তার কারণ হচ্ছে তিনি জানাচ্ছেন যে তার এটা ভীষণ ভালো লাগে এবং তিনি এর জন্য গর্বিত বোধ করেন। কিন্তু এই গোঁফ কি তার হঠাৎ করেই হলো ? তিনি এর জন্য গর্বিত বোধ কেন করেন তার উত্তরও দিয়েছেন তিনি।

মহিলা জানাচ্ছেন যে আগে তিনি অন্য মেয়েদের মতোই পার্লারে গিয়ে মুখের মধ্যে আবির্ভূত হওয়ার সমস্ত চুল কেটে ফেলতেন কিন্তু তারপর তিনি একদিন বুঝতে পারেন যে এগুলো যদি না কাটা হয় তাহলে তার হয়তো মুখটা দেখতে বেশি ভালো লাগছে। আর তখন থেকে তিনি সেটি কাটা বন্ধ করে দেন এবং ধীরে ধীরে সেটি একটি পাকা গোঁফে পরিণত হয়। অর্থাৎ তার নিজেকে গোঁফের সাথে দেখতে বেশি ভালো লাগে এবং সমাজের কটাক্ষের তোয়াক্কা না করে তিনি সেটা রেখেছেন ও আর সেই কারনেই তাকে সেলুট জানাচ্ছে নেটিজেনরা।

কিন্তু এটি রাখার ফলে তার আশেপাশের লোকজন ভীষণভাবে তাকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা মজা করে থাকে কিন্তু মহিলার দাবি আমার এটা রাখতে পছন্দ সুতরাং আমার আশেপাশের মানুষজন কি বলছে আমি সেগুলোতে অতটা খেয়াল করি না।