ধূলের ইনিংস,নিশান্তের WWWWW,বাংলাদেশকে সেমিতে গো-হারা করে ইমার্জিং এশিয়া কাপ ফাইনালে ভারত !

বিশ্ব ক্রিকেটে দাদাগিরি চলছে ভারতীয় দলের, একদিকে যেমন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে রীতিমতো সহজে পরাজিত করছে ভারত, তার পাশাপাশি ভারতের যুব ক্রিকেটাররা যাদের বয়স ১৮ থেকে ২২ এর মধ্যে যারা এখনো পর্যন্ত কেউই ভারতীয় দলের হয়ে খেলে নি, তারা ইমার্জিং এশিয়া কাপে পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের মতো দলগুলিকে পরাজিত করেছে যারা তাদের 30 বছর বয়সী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা প্লেয়ারদের পাঠিয়েছে এই টুর্নামেন্টে। দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ দলের খেলা সৌম্য সরকারের মতো সিনিয়র প্লেয়ারররাও এই যুব ক্রিকেটারদের টুর্নামেন্টে খেলতে গিয়েছেন তার সত্বেও পরাজিত হয়ে চুন কাম করে বাড়ি ফিরল বাংলাদেশ।

গ্রুপ স্টেজে পাকিস্তানকে পরাজিত করে ভারত তাও আবার খুব সহজেই আর এবার সেমিফাইনাল ম্যাচে বাংলাদেশকে রীতিমতো দূরমুস করে দিল ভারতীয় দল। শুক্রবার (২১ জুলাই) কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস জিতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠায় বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাট করে ভারতীয় দল ২১১ রান করে। দলের মাত্র ২৯ রানের মাথাতেই প্রথম উইকেট হারায় ভারত। ওপেনার সাই সুদর্শন ২৪ বলে ২১ রান করে তানজিম হাসান শাকিবের বলে আকবর আলিকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। নিকিন জোস ব্যক্তিগত ১৭ (২৯) রান করে আউট হন। আর এক ওপেনার অভিষেক শর্মা। তিনি ৬৩ বলে করেন ৩৪ রান করেন। যা এদিন ভারতীয় ব্যাটারদের মধ্যে দ্বিতী. সর্বোচ্চ।

```

অভিষেক ২টি চার এবং একটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। এর পর যশ ধুল এসে হাল ধরেন। কিন্তু তাঁকে সঙ্গত করার মতো সে ভাবে কাউকে পাননি ভারত অধিনায়ক। একে একে ফিরে যান নিশান্ত সিন্ধু (৫), রিয়ান পরাগ (১২), ধ্রুব জুরেল (১), হর্ষিত রানারা (৯)। সিন্ধুকে ফেরান রাকিবুল, পরাগ আউট হন শাকিবের বলে এবং ধ্রুব জুরেল এবং হর্ষিতকে আউট করেন মেহেদি হাসান।১৩৭ রানে ৭ উইকেট হারানোর পরেও যশ ধুল ধৈর্য্য ধরে দলের হাল ধরে থাকেন। নার্ভ ঠাণ্ডা রেখে হাফসেঞ্চুরিও করেন। তাঁর জন্যই ভারত দু’শো রানের গণ্ডি টপকান। নয়ে ব্যাট করতে নামা মানব সুতারকে নিয়ে ৪১ রানের জুটি গড়েন তিনি।

২১ রানে মানবকে রানআউট করেন জাকির হাসান। ১৫ রানে সৌম্য সরকারের শিকার হন হাঙ্গার্গেকর। শেষ পর্যন্ত যশ ধুলও ৮৫ বলে ৬৬ করে আউট হয়ে যান। তাঁর ইনিংসে রয়েছে ৬টি চার। কিন্তু ভারতের এই রানের জবাবে ব্যাক করতে নেমে রীতিমতো তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং। যুবদের টুর্নামেন্টে সিনিয়র প্লেয়ারদের নিয়ে খেলতে আসা বাংলাদেশ ভারতীয় দলের সামনের রীতিমত দুহাত খাড়া করে দেয় যে তাদের পক্ষে এই রান করা সম্ভব নয়।

```

শেষ পর্যন্ত মাত্র 160 রানের মাথায় বান্ডিল হয়ে যায় বাংলাদেশের দল এবং ভারত এই সেমিফাইনালে জয়লাভ করে ইমার্জিং এশিয়া কাপের ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে। পাশাপাশি জানিয়ে রাখবো যে ফাইনাল ম্যাচে তারা পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে যারা শ্রীলঙ্কাকে ৫০ রানে পরাজিত করে ফাইনালে উঠেছে যদিও ইতিমধ্যে তারা ভারতের কাছে পরাজিত হয়েছে গ্রুপ স্টেজে তবে আরো একবার লজ্জার মাথা খেয়ে ভারতীয় দলের কাছে পরাজিত হতে তৈরি পাকিস্তানের 30 বছর বয়সী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা ক্রিকেটারদের যুবদল।