সূর্যের তেজে ছারখার শ্রীলঙ্কা!দুরন্ত জয় দিয়ে সিরিজ জিতে রেকর্ড গড়লো টিম ইন্ডিয়া!

নতুন বছর। নতুন সিরিজ। নতুন অধিনায়ক। কিন্তু নিয়ম বদলাল না। কোন নিয়ম? আসলে ঘরের মাঠে ভারত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জিতবে, সেটাই যেন নিয়ম হয়ে গিয়েছে। অধিনায়ক হার্দিকের তরুণ ভারতীয় দল শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সেই ধারা অব্যাহত রাখল। শেষ টি-২০ ম্যাচে লঙ্কাবাহিনীকে ৯১ রানে হারিয়ে ৩ ম্যাচের সিরিজ পকেটে পুরে ফেলল টিম ইন্ডিয়া।এদিন রাজকোটের ব্যাটিং সহায়ক পিচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক হার্দিক (Hardik Pandya)।

লক্ষ্য ছিল বিশাল রানের ইনিংস খেলে শ্রীলঙ্কাকে চাপে ফেলে দেওয়া। সূর্যর অনবদ্য ইনিংসে ভর করে সেটাই করে ফেলল ভারত। নির্ধারিত ২০ ওভারে টিম ইন্ডিয়া (Team India) করল ৫ উইকেটে ২২৯ রান। এই ম্যাচে নামার আগে পর্যন্ত টিম ইন্ডিয়ার টপ-অর্ডার নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। এদিন সেই চিন্তা অনেকটাই কমল। শুরুতে ঈশান কিষানের উইকেট খুইয়ে চাপে পড়ে গেলেও গিল এবং ত্রিপাঠির ব্যাটে খেলার ফেরে ভারত।

ঈশানের উইকেটের পর যেভাবে রাহুল ত্রিপাঠি মাত্র ১৬ বলে ৩৫ রানের ইনিংস খেললেন, সেটাই গোটা ইনিংসের দিশা ঠিক করে দিল।রাহুলের আউট হওয়ার পর শ্রীলঙ্কা বোলারদের একচেটিয়া হারে প্রহার করা শুরু করলেন সূর্যকুমার যাদব। কখনও ফ্লিক, কখনও কাট, কখনও পুল। রাজকোটের ব্যাটিং সহায়ক পিচে সূর্যকুমার যাদবকে (Surya Kumar Yadav) দেখে মনে হল, ক্রিকেট খেলাটাকে যেন তিনি ছেলেখেলা বানিয়ে ফেলেছেন।

মাত্র ৪৫ বলে শতরান করে ফেললেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তিনি ৫১ বলে ১১২ রানে অপরাজিত থাকলেন। টি-২০ ক্রিকেটে কোনও ভারতীয় ব্যাটারের এটি দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরি। এর আগে রোহিত শর্মা এই শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেই ৩৫ বলে শতরান করেন।ভারতের বিরাট রান তাড়া করতে নেমে রানের চাপে খানিকটা দিশেহারা হয়ে গেল শ্রীলঙ্কা।

শুরুটা ভাল হলেও ৪৪ রানের মাথায় প্রথম উইকেট খোয়ানোর পরই শ্রীলঙ্কা বোলারদের আসা যাওয়া শুরু হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত লঙ্কা বাহিনী অল-আউট হয়ে যায় মাত্র ১৩৭ রানে। ভারত ম্যাচ যেতে ৯১ রানে। লঙ্কা ব্রিগেডের তরফে সর্বোচ্চ অধিনায়ক শনাকা ২৩ রান করেন।