কোহলির সেঞ্চুরি আটকাতে বাংলাদেশি বোলারের নোংরামো, চরম শাস্তি দিলেন আম্পায়ার!দেখুন ভিডিও

ভারত বাংলাদেশ ম্যাচে কে জিতবে এই নিয়ে খুব একটা সন্দেহ থাকে না। তার উপরে বিশ্বকাপের মতো ময়দানে যেখানে ভারতীয় দল এতটা দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে সেখানে বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের ভারতীয় দলের সামনে রীতিমত যে মুখ থুবড়ে পড়বে এই নিয়ে কোন সন্দেহ নেই, কিন্তু যেভাবে বাংলাদেশে বোলাররা নোংরামো করার চেষ্টা করল বিরাট কোহলির সেঞ্চুরি আটকাতে তা রীতিমতো বিশ্ব ক্রিকেটের সামনে বাংলাদেশি ক্রিকেটের চেহারাটা আরো পরিষ্কার করে দিল।

বাংলাদেশ ব্যাট করে এবং ২৫৬ রানের মতো একটা টোটাল খাড়া করে যেখানে রীতিমতো 350 রানের পিচ এটা ছিল। এই রান তারা করতে নেমে ভারতীয় দলের কাছে ব্যাপারটা খুবই সহজ একটা ব্যাপার হবে এটা বোঝা যাচ্ছিল এবং খুব দাপটের সাথে মাত্র ৪০ ওভারে এই খেলা শেষ করে দিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু শেষের দিকে যখন ২৬ রান দরকার তখন বিরাট কোহলি ব্যাট করছিলেন ৭৪ রানে এবং একটি ছয় মারার পরে তিনি একটা আইডিয়া বের করেন এবং দেখেন যে হতে পারে তার সেঞ্চুরি সম্পন্ন হয়ে যেতে পারে। তারপরের বলেই ছক্কা মারেন তিনি এবং পৌঁছে যান ৮০ রানে আর ভারতীয় দলের দরকার ছিল ২০ রান।

```

তারপর লাগাতার একের পর এক চার ছয়, শেষ বলে সিঙ্গেল এবং মাঝের দিকে ডবল, খুব তাড়াতাড়ি সেঞ্চুরির কাছে পৌঁছে যান এবং শেষ ওভারে সেঞ্চুরি করার জন্য তার দরকার ছিল মাত্র দু রান কিন্তু এখানে খুবই নোংরা এবং লজ্জাজনকভাবে বাংলাদেশী বোলার একটা ওয়াইড বল করেন বিরাট কোহলির স্ট্যাম্পের দিকে। এটা বুঝতে খুব বেশি দেরি হয়নি যে তিনি বলটা করেছেন যাতে বিরাট কোহলি সেঞ্চুরি না করতে পারেন এবং সেটা আম্পেয়ার খুব ভালোভাবেই বুঝতে পেরে যান এবং আম্পায়ার সেটিকে ওয়াইড বল দেননি। বাংলাদেশী বোলার এর নোংরামোকে আম্পায়ারের এটা একটা যোগ্য জবাব ছিল। এখন অনেকে প্রশ্ন তুলতে পারেন যে আম্পায়ার কেন ওয়াইড দিলেন না তবে এর পিছনে রয়েছে যথেষ্ট কারণ। প্রথমে দেখুন ভিডিও:

https://twitter.com/sumityou50/status/1715037138570625084?t=ZY9b3lkDsX-J9XEpkxr5jw&s=19

এক্ষেত্রে জানিয়ে রাখি যে আম্পায়ার শুধুমাত্র ক্রিকেট ফিল্ডে যেসব ঘটনা ঘটছে অর্থাৎ ৪ বা ৬ দেখাবেন, আউট হলে আউট দেখাবেন এটুকুই তার রোল নয়। তার কাছে দায়িত্ব থাকে পুরো ম্যাচটিকে সঠিক ভাবে পরিচালনা করার যদিও রেফারির কাজ কিন্তু আলাদা, আম্পায়ারের কাজ মাঠের মধ্যে যাতে সুষ্ঠুভাবে খেলাটি সম্পন্ন হয় এবং সেখানে যদি কোন ক্রিকেটার খারাপ পদ্ধতি অবলম্বন করে সেক্ষেত্রে সেটিকে সঠিক করার ক্ষমতা আম্পায়ারের হাতে রয়েছে।

```

আর সেই কারণেই যেভাবে ভুল পদ্ধতি অবলম্বন করে বিরাট কোহলির সেঞ্চুরি আটকাতে চাইছিলেন বাংলাদেশের বোলার নাসুম আহমেদ তার জবাবে এটাই করলেন আম্পায়ার রিচার্ড কেটেলবড়ো। আর তার এই সিদ্ধান্তকে সারা বিশ্বের ক্রিকেট ভক্তরা স্যালুট জানিয়েছে যে কিভাবে তিনি একটি ভুল কে ঠিক করার জন্য অ্যাকশন নিয়েছেন।

পাশাপাশি জানিয়ে রাখবো যে বিরাট কোহলি আজকের ম্যাচে, ২৬০০০ রান সম্পন্ন করেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সব থেকে দ্রুততম এবং সচীনের থেকেও ৩৩ টি ম্যাচ তিনি কম খেলেছেন এবং ৪৮ তম সেঞ্চুরিটি সম্পন্ন করলেন ওয়ানডে ক্রিকেটে।