দুই ইনিংসেই শূন্য রানে আউট কোহলি,দুই ইনিংসেই হাফ-সেঞ্চুরি শ্রীবৎস গোস্বামীর

একক লড়াই বোধহয় একেই বলে। মণিপুরের বিরুদ্ধে রঞ্জি ম্যাচের দুই ইনিংসেই অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন শ্রীবৎস গোস্বামী। যদিও তাঁর জোড়া অর্ধশতরান মিজোরামের ইনিংস হারের লজ্জা বাঁচাতে পারেনি।এই ম্যাচে ব্যাট হাতে বিরল ব্যর্থতার মুখে পড়েন দুরন্ত ফর্মে থাকা কোহলি।

মিজোরামের ক্যাপ্টেন কোহলি। মণিপুরের বিরুদ্ধে দুই ইনিংসেই শূন্য রানে আউট হন তিনি। অথচ চলতি রঞ্জি ট্রফিতে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন । মেঘালয়ের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচের দুই ইনিংসে তিনি যথাক্রমে ১২৩ ও ৪০ রান করেন। অরুণাচলপ্রদেশের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ম্যাচে দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি করেন কোহলি। একটি ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তিনি ২০৩ রান করে আউট হন।সিকিমের বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচের দুই ইনিংসেই ব্যক্তিগত হাফ-সেঞ্চুরির গণ্ডি টপকান মিজোরামের দলনায়ক। তিনি সংগ্রহ করেন যথাক্রমে ৯৪ ও ৫০ রান। তবে মণিপুরের বিরুদ্ধে দুই ইনিংসেই খাতা খুলতে ব্যর্থ তরুবর।

প্রথম ইনিংসে মিজোরামকে ১০৪ রানে গুটিয়ে দিয়েছিল মণিপুর। বাংলা ছেড়ে মিজো শিবিরে যোগ দেওয়া শ্রীবৎস গোস্বামী দলের হয়ে সব থেকে বেশি ৫৮ রান করেন প্রথম ইনিংসে। ৮৯ বলের ইনিংসে তিনি ৭টি চার মারেন। মণিপুরের হয়ে ৪টি উইকেট নেন ফেইরইজাম সিং।পালটা ব্যাট করতে নেমে মণিপুর প্রথম ইনিংসে ২৭৭ রান তোলে। ৮ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে হাফ-সেঞ্চুরি করেন ফেইরইজাম। তিনি ৫টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১২৯ বলে ৫১ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এছাড়া কাঙ্গাবাম সিং ৪৯, রোনাল্ড লংজাম ৩৯, প্রফুল্লমনি সিং ৩৪, কেইশাংবাম ৩০, রেক্স রাজকুমার ২৫ ও বিকাশ সিং ২৫ রান করেন।ব্যাট হাতে রান না পেলেও মণিপুরের হয়ে সব থেকে বেশি ৪টি উইকেট নেন ক্যাপ্টেন তরুবর কোহলি। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন রালতে ও নবীন গুরুং। ১টি করে উইকেট দখল করেন অবিনাশ যাদব ও ববি।প্রথম ইনিংসের নিরিখে ১৭৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় দফায় ব্যাট করতে নামা মিজোরাম। তারা দ্বিতীয় ইনিংসে অল-আউট হয়ে যায় ১৩৭ রানে। এক ইনিংস ও ৩৬ রানের ব্যবধানে ম্যাচ জেতে মণিপুর।

দ্বিতীয় ইনিংসেও মিজোরামের হয়ে সব থেকে বেশি ৬২ রান করেন শ্রীবৎস গোস্বামী। ৭১ বলের ইনিংসে তিনি ৯টি চার মারেন। দুর্ভাগ্যজনক রান-আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন গোস্বামী। এছাড়া ৪২ রান করেন ভানলাল। বাকিরা কেউই ২ অঙ্কের রানে পৌঁছতে পারেননি। প্রথম ইনিংসে মিজোরামের ৬ জন ব্যাটসম্যান শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে তাদের ৪ জন ব্যাটসম্যান শূন্য রান করেন।মণিপুরের বিশ্বরজিৎ দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৫ রানে ৫ উইকেট দখল করেন। ১৭ রানে ৪ উইকেট নেন কিষাণ সিং।