৪৯ টা চার,৪ টি ছক্কা রঞ্জি ট্রফির ইতিহাসে ৭৫ বছরের সর্বোচ্চ স্কোর করে রেকর্ড গড়লেন পৃথ্বী শ!

রঞ্জি ট্রফিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি করলেন পৃথ্বী শ। অসমের বিরুদ্ধে মাত্র ৩৮৩ বলে ৩৭৯ রান করেন মুম্বইয়ের তারকা ব্যাটার। সেই ইনিংসের সুবাদে প্রথম ভারতীয় হিসেবে অবিশ্বাস্য নজির গড়েছেন। আবার দ্রুত রান করার নিরিখেও পৃথ্বী বিশ্বে অভাবনীয় নজির তৈরি করেছেন।মঙ্গলবার ২৮৩ বলে ২৪০ রানে অপরাজিত ছিলেন পৃথ্বী। বুধবার যেন আরও ধারালো হয়ে ওঠেন। অসমের মাঠে ৩০০ রান পূরণ করতে মাত্র ৪৩ টি বল লাগে। ৩২৬ বলে ট্রিপল সেঞ্চুরি করেন।

যা প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পৃথ্বীর প্রথম ট্রিপল-সেঞ্চুরি। তবে তাতেই ক্ষান্ত হননি পৃথ্বী। একটা সময় মনে হচ্ছিল, যেভাবে পৃথ্বী খেলছেন, তাতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ব্রায়ান লারার সর্বোচ্চ ৫০১ রানের রেকর্ড না ভেঙে যায়। সেটা অবশ্য হয়নি। ৩৭৯ রানে আউট হয়ে যান পৃথ্বী। ৪৯ টি চার এবং চারটি ছক্কা মারেন।সেই ইনিংসের সুবাদে একাধিক নজির গড়েন পৃথ্বী। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, প্রথম ভারতীয় খেলোয়াড় হিসেবে রঞ্জি ট্রফিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি, বিজয় হাজারে ট্রফিতে (ঘরোয়া ৫০ ওভারের টুর্নামেন্ট) দ্বিশতরান এবং সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে (ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট) শতরানের নজির গড়েছেন মুম্বইয়ের ওপেনার। সেইসঙ্গে রঞ্জি ট্রফিতে মুম্বইয়ের হয়ে সর্বোচ্চ স্কোরের সিংহাসনে বসে পড়েন।

রঞ্জি ট্রফিতে সর্বোচ্চ স্কোর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট রঞ্জি ট্রফিতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলেন পৃথ্বী। ওই তালিকার প্রথম চারে কারা আছেন, তা দেখে নিন -১) বিবি নিম্বলকর (মহারাষ্ট্র) বনাম কাথিয়াওয়ার, ১৯৪৮ সাল, অপরাজিত ৪৪৩ রান। ২) পৃথ্বী শ (মুম্বই) বনাম অসম, ২০২৩ সাল, ৩৭৯ রান। ৩) সঞ্জয় মঞ্জরেকর (মুম্বই) বনাম হায়দরাবাদ, ১৯৯১ সাল, ৩৭৭ রান। ৪) এমভি শ্রীধর (হায়দরাবাদ) বনাম অন্ধপ্রদেশ, ১৯৯৪ সাল।

কনিষ্ঠতম হিসেবে মুম্বইয়ের জার্সিতে রঞ্জি ট্রফিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি১) ওয়াসিম জাফর বনাম সৌরাষ্ট্র, ১৯৯৬ সাল, ১৮ বছর ২৬২ দিন। ২) সরফরাজ খান বনাম উত্তরপ্রদেশ, ২০২০ সাল, ২২ বছর ৮৯ দিন। ৩) রোহিত শর্মা বনাম গুজরাট, ২০০৯ সাল, ২২ বছর ২২৯ দিন। ৪) পৃথ্বী শ বনাম অসম, ২০২৩ সাল, ২৩ বছর ৬৩ দিন।একই ম্যাচে মধ্যাহ্নভোজের আগে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১০০-র বেশি রান ১) গিলবার্ট জেসপ, (গ্লাউচেস্টারশায়ার) বনাম ইয়র্কশায়ার, ১৯০০ সাল। ২) পৃথ্বী শ (মুম্বই) বনাম অসম, ২০২৩ সাল (জেসপ দুটি আলাদা ইনিংসে করেছিলেন, পৃথ্বী একই ইনিংসে করেছেন)।

পৃথ্বীর সেই ট্রিপল সেঞ্চুরির পর তাঁকে ভারতীয় দলে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি উঠেছে। প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার আকাশ চোপড়া বলেন, ‘রঞ্জি ট্রফিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি, বিজয় হাজারে ট্রফিতে দ্বিশতরান এবং সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে শতরান। ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার জন্য এর থেকে বেশি কিছু করা মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। (ভারতীয় দলের) দরজায় কড়া নাড়াচ্ছেন পৃথ্বী। দারুণ খেলেছ।’