রঞ্জিতে লজ্জাজনক রেকর্ড: মাত্র ৭৩ রানের লক্ষ্য পার করতে গিয়ে ৪৮-এ শেষ হলো ইনিংস!

দিল্লির লজ্জার দিন মুছে দিল গুজরাত। রঞ্জি ট্রফি এর ইতিহাসে এই ধরনের ঘটনা কখনো ঘটেনি। রঞ্জি ট্রফিতে দেশীয় ক্রিকেটাররা বিশাল বিশাল রানের ইনিংস খেলেন এরকমটা দেখতেই অভ্যস্ত ক্রিকেট ভক্তরা এবং এই বছরে হয়েছেও সেরকম বেশ কিছু ভারতীয় ট্যালেন্টের ক্রিকেটার একা হাতে বড় বড় রান করেছেন যেমন পৃথ্বী স থেকে শুরু করে সরফরাজ। কিন্তু সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে এই বছরে রঞ্জি ট্রফি ইতিহাসে এমন একটি ঘটনা ঘটলো যেখানে লক্ষ্য ছিল মাত্র ৭৩ রান। সেই রানও তুলতে পারল না বিপক্ষ দল

মাত্র ৭৪ রান টার্গেট দিয়েছিল বিদর্ভ। আর সেই টার্গেট তারা করতে নেমে রীতিমতো বান্ডিল হয়ে গেল গুজরাত। ৫৪ রানে সব উইকেট হারাল তারা। ৭৪ বছর পর ভেঙে গেল রঞ্জির ইতিহাস। গুজরাতকে হারিয়ে ৬ পয়েন্ট তুলে নিল বিদর্ভ। ১৯৪৯ সালে দিল্লির সামনে ৭৮ রানের লক্ষ্য রেখেছিল বিহার। সে বার দিল্লি ৪৮ রানে সব উইকেট হারায়। এত দিন সেটাই ছিল রঞ্জির ইতিহাসে সব থেকে কম রানের লক্ষ্য যা বিপক্ষ তুলতে পারেনি। সেই রেকর্ড ভেঙে গেল বৃহস্পতিবার।

গুজরাতের সামনে মাত্র ৭৩ রানের লক্ষ্য রেখেছিল বিদর্ভ। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫৪ রানে শেষ গুজরাত। বিদর্ভের আদিত্য সারাওয়াত একাই ৬ উইকেট নেন। ৩ উইকেট নেন হর্ষ দুবে। রান আউট হন সিদ্ধার্থ দেসাই।প্রথম ইনিংসে ৭৪ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল বিদর্ভ। তার পরেও যে ফৈয়জ ফয়জালের দল ম্যাচ জিতবে, তা ভাবতে পারেননি অনেকেই। সেই ইনিংসে ৫টি করে উইকেট নেন গুজরাতের চিন্তন গাজা এবং তেজস পটেল।

গুজরাত ১৮২ রানের লিড নেয়। দ্বিতীয় ইনিংসে বিদর্ভ ২৫৪ রান করে। জিতেশ শর্মা ৬৯ রান করেন। ৭৩ রানের লক্ষ্য ছিল গুজরাতের সামনে। সেটাই করতে পারল না তারা।গ্রুপ ডি-তে রয়েছে বিদর্ভ। তাদের এখন ১৯ পয়েন্ট। গুজরাত এবং রেলওয়েজ়কে টপকে গেল তারা। গ্রুপে তৃতীয় স্থানে বিদর্ভ। মধ্যপ্রদেশ ৩২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা পঞ্জাবের সংগ্রহ ২৬ পয়েন্ট।

পাশাপাশি জানিয়ে রাখবো যে আজকে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত এবং নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে যেখানে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে ভারতীয় দল ইতিমধ্যে জয়লাভ করেছে।