সচিনের সবথেকে বড় ঐতিহাসিক রেকর্ড ভেঙে নজির গড়লেন বিরাট কোহলি!

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তিন ওয়ানডে সিরিজের ম্যাচে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করলেন ভারতীয় দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি। মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারি গুয়াহাটিতে কোহলি তাঁর ওডিআই ক্যারিয়ারের ৪৫তম সেঞ্চুরি করেন। এই সময়ে সচিন তেন্ডুলকরের একটি রেকর্ডের সমান করলেন বিরাট কোহলি। এবং সচিনের একটি রেকর্ড ভেঙে দিলেন কিং কোহলি। ২০১৯ সালের নভেম্বরের পর ঘরের মাঠে এটি কোহলির প্রথম সেঞ্চুরি। এটি তাঁর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ৭৩তম শতরান।

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ওয়ানডেতে এটি কোহলির নবম সেঞ্চুরি। এক্ষেত্রে তিনি পিছনে ফেলেছেন সচিন তেন্ডুলকরকে। মাস্টার ব্লাস্টার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আটটি শতরান করেছেন। তবে একক দলের বিরুদ্ধে ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করার রেকর্ড সচিনের রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নয়টি সেঞ্চুরি করেছেন সচিন। একই সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে নয়টি সেঞ্চুরি করেছেন বিরাট কোহলি।এছাড়া ঘরের মাটিতে বিরাট ২০তম ওডিআই সেঞ্চুরি করেছেন বিরাট।

ঘরের মাঠে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করার ক্ষেত্রে তিনি তেন্ডুলকরের সমান করেছেন। সচিন ভারতে তার ৪৯টি সেঞ্চুরির মধ্যে ২০টি করেছিলেন। একই সঙ্গে বিদেশের মাটিতে ২৯ বার সেঞ্চুরি করেছিলেন সচিন। একই সময়ে, কোহলি ভারতে ২০টি এবং বিদেশে ২৫টি সেঞ্চুরি করেছেন।ওয়ানডে ক্যারিয়ারে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি রান করেছেন কোহলি। এই ইনিংসে সেটাই করলেন তিনি। এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তাঁর সর্বোচ্চ ২২৬১ রান ছিল। বিরাট অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২০৮৩ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ১৪০৩ রান করেছেন।

২০১৯ সালের পর টানা দুই ওয়ানডেতে কোহলি সেঞ্চুরি করলেন। কোহলি ২০১৯ সালের অগস্ট থেকে টানা দুটি ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করেছেন। এরপর পোর্ট অফ স্পেনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বিরাট ১২০ এবং অপরাজিত ১১৪ রান করেন। এবার তিনি ১০ ডিসেম্বর বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ১১৩ রান করেন এবং ১০ জানুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করলেন।বিরাট কোহলির ব্যাট ২০১৯ সালের শেষ থেকে ২০২২ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত নীরব ছিল।

এ সময় তার ব্যাট থেকে রান আসছিল না। সেই সময়ে বিরাট কোহলি কোনও ফর্ম্যাটেই সেঞ্চুরি করতে পারেননি। এরপরে এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করে এই খরা শেষ করেন বিরাট। এরপর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তার ব্যাট কথা বলে। এরপর ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও সেঞ্চুরি করেন বিরাট কোহলি।