৭৩ রানে বান্ডিল শ্রীলঙ্কা! হোয়াইটওয়াশ করে বিশাল জয় দিয়ে অনবদ্য রেকর্ড ভারতীয় দলের!

ভারতীয় দল বর্তমানে বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম শক্তিশালী একদল। শ্রীলংকার বিরুদ্ধে প্রথম দুটি ম্যাচ জিতে ইতিমধ্যেই ভারতীয় দল সিরিজে জয়লাভ করেছিল এখন যে বিষয়টির অপেক্ষা ছিল সেটা ছিল একটা হোয়াইটওয়াশ, আর শ্রীলঙ্কাকে তৃতীয় ম্যাচেও পরাজিত করে হোয়াইটওয়াশ করতে সক্ষম হয়েছে ভারতীয় দল।

বিরাট কোহলির ১৬৬ রানের ইনিংসের পর মাঠে নেমে আগুন ঝরালেন শামি-সিরাজরা। ৩৯১ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল লঙ্কা ব্যাটিং। চার উইকেট নিলেন মহম্মদ সিরাজ। বড় ব্যবধানে জয় পেয়ে এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়নদের হোয়াইটওয়াশ সেরে নিল ভারত।রবিবারের ম্যাচের নায়ক বিরাট কোহলি। ১৬৬ রানের ইনিংস খেলে ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় পাঁচ নম্বরে উঠে এলেন। শচীন তেণ্ডুলকরের পরে দ্বিতীয় ভারতীয় হিসাবে এই তালিকার প্রথম পাঁচে ঢুকে পড়লেন প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক। সিরিজের প্রথম ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকানোর পরে ইডেনে রান পাননি বিরাট। তবে নিয়মরক্ষার ম্যাচে ফের জ্বলে উঠলেন। পরিসংখ্যান বলছে, গত চারটি ওয়ানডে ম্যাচের তিনটিতেই শতরান করেছেন কোহলি। ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ জয়ের প্রস্তুতির মধ্যে ভারতীয় সমর্থকদের অনেকটা স্বস্তি দেবে তাঁর ফর্ম।

এদিন টসে জিতে ব্যাট করে ভারত। হার্দিক পাণ্ডিয়া ও উমরান মালিককে বাদ দিয়েই প্রথম একাদশ নামান রোহিত। তবে সিরিজের প্রথম ম্যাচে রান পেলেও আর নজর কাড়তে পারেননি ভার‍ত অধিনায়ক। কিন্তু উলটোদিকে ধারাবাহিকভাবে রান পাচ্ছেন শুভমন গিল। এদিন আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি করলেন তরুণ ব্যাটার।

বিরাট কোহলির সঙ্গে ১৩১ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দলের বড় রানের মঞ্চ গড়লেন তিনিই। তবে এদিন দলে সুযোগ পেলেও রান করতে পারলেন না বিশ্বের সেরা টি-টোয়েন্টি ব্যাটার সূর্যকুমার যাদব। ৫০ ওভারের শেষে ৩৯০ রান তোলে ভারত।রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই সমস্যায় পড়ে লঙ্কা ব্যাটাররা। শামি ও সিরাজ-দুই ওপেনিং বোলারের সুইং সামলাতে বেহাল হয়ে পড়েন আবিষ্কা ফার্নান্ডো-কুশল মেন্ডিসরা। দ্বিতীয় ওভারেই সিরাজের বলে আবিষ্কার দুরন্ত ক্যাচ ধরেন শুভমন। চার উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ সিরাজ এবং দুটি করে উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ সামি এবং কুলদীপ যাদব।

সেখান থেকেই পরপর উইকেট পড়তে থাকে। বড় রান তাড়া করার মতো পার্টনারশিপই গড়তে পারেনি দাসুন শনাকার দল। মাত্র রানেই শেষ হয়ে যায় লঙ্কা ইনিংস। ওয়ানডে কেরিয়ারের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স করে দলকে জেতালেন মহম্মদ সিরাজ।