৪০০ টাকা মাইনে থেকে ১৬০০ কোটির মালিক থেকে সব হারিয়ে ফুটপাতে,রইলো সুদীপ দত্তর গল্প

আজকাল সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ পাতলেই দেখা যায় বিভিন্ন মানুষের জীবনের উত্থান এবং পতন, রতন টাটা থেকে বিজয় মালিয়া, অনিল আম্বানি থেকে মুকেশ আম্বানি, এরকম কত কত উদাহরণ রয়েছে যারা জীবনে একটা খুবই সাধারণ মধ্যবিত্ত বা গরীব অবস্থা থেকে জীবনে বিশাল বড় কিছু করে দেখিয়েছেন । আবার অনেকে সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মেও ফিরে এসেছেন ফুটপাতে। আর তাদের থেকেও একটু আলাদা গল্প বাঙালি ব্যবসায়ী সুদীপ দত্তর। যিনি গরীব থেকে কোটিপতি থেকে আবার ফুটপাতে ফিরে এসেছেন।

পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুর এর বাসিন্দা সুদীপ, তার বাবা একজন আর্মি অফিসার যিনি 71 সালের বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হন। সুদীপ ছোট থেকেই ইঞ্জিনিয়ার হতে চেয়েছিলেন কিন্তু ভুল সময়ে বাবার মৃত্যু তার সেই স্বপ্ন পূরণ করতে দেয়নি। মাত্র 17 বছর বয়সে বাবাহীন সুদীপ পাড়ি দেন স্বপ্নের শহর মুম্বাই। 400 টাকা মাইনেতে একটি প্যাকেজিং কোম্পানিতে চাকরি করতেন, কুড়ি জনের সাথে একটা রুমে থাকতেন, যেখানে তিনি থাকতেন সেখান থেকে তার কাজের জায়গা 40 কিলোমিটার দূরে যা তিনি পায়ে হেঁটে যেতেন প্রত্যেকদিন, শুধুমাত্র টাকা বাঁচানোর জন্য কারণ সেই টাকা থাকে বাড়িতে পাঠাতে হতো কারণ বাবার মৃত্যুর পর বাড়ির দায়িত্ব ছিল তার ওপরে।

তারপর হঠাৎ জানতে পারেন যে প্যাকেজিং কোম্পানিতে তিনি চাকরি করছেন সেটি লসে চলছে তাই মালিকরা কোম্পানি বন্ধ করতে চলেছেন, আর তারপরেই তিনি সিদ্ধান্ত নেন এবং জমানো টাকা দিয়ে সেই লসে চলা কোম্পানিটি তিনি নিজেই কেনেন প্রায় 16 হাজার টাকার বিনিময়ে।মালিককে কথা দেন প্রথম দু বছরের লাভের একটা পার্সেন্ট তিনি মালিককে দেবেন, তারপরে আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একটা সময়ে তিনি হয়েছিলেন 1685 কোটির মালিক। কিন্তু তারপরেই পতনের শুরু।

যে কোম্পানিটি তিনি চালাচ্ছিলেন তার থেকেও বড় একটি কোম্পানি তিনি কিনে ফেলেন, যেটা খুবই অবাক করা একটি ব্যাপার কারন সাধারণত কোম্পানি তার থেকে ছোট কোম্পানিই কিনে থাকে। তার থেকেও অবাক করা ব্যাপার ইন্ডিয়া ফয়েল নামের যে কোম্পানি তিনি বিশাল বড় অঙ্কের একটি টাকা দিয়ে কেনেন, সেটি আগে থেকেই লসে চলছিল। সেখান থেকে আর তিনি উঠে আসতে পারেন নি, পতন ঘনিয়ে আসে, লাভের মুখ আর তিনি দেখতে পান নি।কর্মীদের মাইনে না দেওয়া, প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা না দেওয়া অনেক রকমের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে এবং অবশেষে ভারত ছেড়ে সিঙ্গাপুর তিনি পালিয়ে যান।

একটা সময় জিন্দালের মত কোম্পানি ছিল তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী যাদেরকে পরাজিত করে এগিয়ে চলেছিলেন সুদীপ দত্ত কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে বা বলতে পারেন নিজের ভুল সিদ্ধান্তে আজকে তার আর কোন অস্তিত্ব নেই।