‘এটা করা ঠিক নয়,এটা ক্রিকেট নয়’: ইশান কিশানের বিতর্কিত কান্ড নিয়ে ক্ষুব্ধ গাভাসকর,দেখুন ভিডিও

১৮ জানুয়ারি বুধবার, হায়দরাবাদে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডেতে শুভমন গিল সকলের প্রশংসা পেয়েছে এবং ডাবল সেঞ্চুরির কারণে তিনি এই ম্যাচে লাইমলাইটে ছিলেন। তবে তাঁর দুর্দান্ত ইনিংস ছাড়াও, এদিনের ম্যাচে আরও একটি ঘটনা সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। হাত করে উইকেট ফেলে দেওয়ার ঘটনার পরে উইকেটরক্ষক ইশান কিষাণও আলোচনার শিরোনামে চলে এসেছিলেন। তবে এই ধরনের কাজের জন্য তাঁর কড়া সমালোচনা করলেন প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক সুনীল গাভাসকর। আসলে হার্দিক পান্ডিয়ার আউটের কারণে আগেই প্রশ্নের মুখে পড়েছিল এদিনের আম্পায়ারিং সিদ্ধান্ত। হার্দিক পান্ডিয়ার আউটের পরে রিপ্লেতে স্পষ্টভাবে দেখা গিয়েছিল যে টম ল্যাথামের গ্লাভস স্টাম্পে লেগেছিল, কিন্তু তারপরেও অলরাউন্ডারকে তৃতীয় আম্পায়ার অনন্ত পদ্মনাভন আউট দিয়েছিলেন।

কয়েক বলের পর আবার উইকেট পড়ে যায় এবং মাঠের আম্পায়ারদের তৃতীয় আম্পায়ারের কাছে যেতে হয় শুধুমাত্র এটি জানতে যে শুভমন গিল উইকেটে আঘাত করেননি। যাইহোক, এটি আবার ল্যাথামের গ্লাভসে লেগেছিল এবং বেইল সেই ধাক্কায় পড়ে খেয়েছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে যখন নিউজিল্যান্ড ৩৫০ রান তাড়া করছিল, তখন একই রকম কিছু ঘটেছিল। কিন্তু এবার এই কাজটি করেছিলেন ভারতের উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান ইশান কিষাণ। সম্ভবত, নিউজিল্যান্ড অধিনায়ককে তাঁর কর্মের স্বাদ দেওয়ার জন্য ইশান কিষাণ এমনটা করেছিলেন।

ম্যাচের ১৬তম ওভারের সময়, ব্ল্যাক ক্যাপস অধিনায়ক কুলদীপ যাদবের বিরুদ্ধে খেলছিলেন এবং তখন ইশান কিষাণের আউটের জন্য আবেদন করেছিলেন। নিয়ম অনুযায়ী, মাঠের আম্পায়ারদের হিট-উইকেট চেক করার জন্য টিভি আম্পায়ারের কাছে রেফার করতে হতো। রিপ্লে দেখার পর দেখা গেল যে ল্যাথাম নিরাপদ ছিলেন, কিন্তু ইশান কিষাণই চতুরতার সঙ্গে হাত দিয়ে বেইলগুলো ফেলে দিয়েছিলেন। ভারতের উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান এই সময় হাসতে থাকেন এবং তাঁর সেই দুষ্টুমি মাখা মুখ ক্যামেরায় ধরা পড়েছিল। কিন্তু প্রাক্তন অধিনায়ক সুনীল গাভাসকর (যিনি সেই সময়ে ধারাভাষ্য করছিলেন) তরুণের এই আচরণে একেবারেই খুশি হননি, বরং ইশানের উপর বেশ চটেছিলেন সুনীল গাভাসকর, কারণ তিনি এটি কিছুতেই পছন্দ করেননি। দেখুন ভিডিও :

সুনীল গাভাসকর অন এয়ার বলেন, ‘এটা ঠিক নয়। এটা ক্রিকেট নয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটা একটা রসিকতা হিসাবে ঠিক ছিল. কিন্তু তারপরে গিয়ে আপিল করতে হল কেন। মনে করবেন না যে এটা করা সঠিক কাজ। কৌতুক হিসেবে টম ল্যাথামকে বলতে বা পরামর্শ দেওয়ার জন্য যে ভারত যখন ব্যাটিং করছিল তখন আগে কী ঘটেছিল, সেটা বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু আপিল করা নয়। এটা ঠিক নয়। এটা ক্রিকেট নয়।’

মুরলি কার্তিক বলেন, ‘ইশানের আবেদন করা উচিত ছিল না যদি তিনি এটি শুধুমাত্র মজা করার জন্য করে থাকেন।’ এর আগে, রবি শাস্ত্রী (যিনি ভারতীয় ইনিংসের সময় ধারাভাষ্যের দায়িত্বে ছিলেন) হার্দিক পান্ডিয়ার আউট নিয়ে বিরক্ত ছিলেন। হার্দিক পান্ডিয়ার আউটের পরে রবি শাস্ত্রী বলেছিলেন, ‘ওহ, এটা আউট দেওয়া হয়েছে! ড্যারিল মিচেলের খুশি হওয়া উচিত। সত্যিই খুশি হওয়া উচিত, কারণ আপনি যদি আবার দেখেন উইকেটরক্ষকের গ্লাভস কোথায়, বল কোথায়, বল যখন স্টাম্পের বাইরে আসে, তখন মনে হয় বলটি স্টাম্পের এক, দেড় ইঞ্চি উপরে ছিল। বলটি বেইলের উপরে স্পষ্টভাবে দৃশ্যমান। আপনি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছেন যে এটি গ্লাভসে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে লাল আলো নেই, এটি তার পরে ঘটেছে। সেই কোণ থেকে আপনি দেখতে পাচ্ছেন যে গ্লাভসগুলি বলের চেয়ে বেইলের কাছাকাছি।’