ফর্মে না থাকায় সৌরভকেও বাদ যেতে হয়েছে তাহলে কোহলি নয় কেন?: বীরেন্দ্র শেবাগ

বিরাট কোহলীর দলে থাকা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন ক্রমশ বড় হচ্ছে। কপিলদেবের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে অধিনায়ক রোহিত শর্মা সতীর্থের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কিন্তু, কোহলীকে দলে রাখার যৌক্তিকতা নিয়ে মুখ খুলতে শুরু করেছেন একের পর এক প্রাক্তন। সেই তালিকায় ঢুকে পড়লেন বেঙ্কটেশ প্রসাদ, বীরেন্দ্র সহবাগও।ভারতের দল নির্বাচন নিয়ে সুর চড়িয়েছেন প্রসাদ। প্রাক্তন সতীর্থ তথা ভারতীয় দলের বর্তমান কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের নীতির সমালোচনা করেছেন তিনি।

প্রসাদ টুইট করছেন, ‘তুমি যখন ছন্দে থাকবে না, তখন তোমার দলের বাইরে থাকাই উচিত। সে তুমি যেই হও। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বীরেন্দ্র সহবাগ, যুবরাজ সিংহ, জাহির খান, হরভজন সিংহ সকলকেই খারাপ ছন্দের জন্য বাদ যেতে হয়েছে। ওরা সকলেই ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে গিয়েছিল। সেখানে ভাল খেলে আবার দলে ফিরেছিল। এখন কি সব বদলে গিয়েছে? বিশ্রাম নিয়ে কে কবে ছন্দে ফিরেছে! এটা উন্নতির কোনও পথ হতে পারে না।

আমাদের দেশে প্রতিভার কোনও অভাব নেই। শুধু নামের সুবাদে কেন কেউ খেলেই যাবে। অনিল কুম্বলের মতো ক্রিকেটারকেও বহু বার বসতে হয়েছে। ভাল কিছুর জন্য তো কিছু করে দেখাতে হবে।’প্রসাদের মতো সুর চড়িয়েছেন বীরেন্দ্র সহবাগও। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে হারের পরেই সোচ্চার হন সহবাগ। সূর্যকুমার যাদবের দুরন্ত শতরানকে ইঙ্গিত করে তিনি লেখেন, ‘ভারতের অনেক ব্যাটার রয়েছে, যারা যথেষ্ট ভাল ছন্দে রয়েছে। কিন্তু, দুর্ভাগ্যজনক ভাবে তাদের অনেককেই বসে থাকতে হচ্ছে। বর্তমান ছন্দের বিচারে সেরা ১১জন ক্রিকেটারেরই খেলা উচিত আন্তর্জাতিক ম্যাচে।’

রবি শাস্ত্রীরও একই মত। ভারতীয় দলের প্রাক্তন কোচের বক্তব্য, টানা ক্রিকেটের সঙ্গে জৈব বলয়ের মধ্যে থাকার প্রভাব পড়ছে ক্রিকেটারদের মধ্যে। কোহলীর সঙ্গে রোহিত শর্মাকেও বিশ্রাম দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছেন তিনি। কোহলী, রোহিতকে দীর্ঘ ছুটিতে পাঠানোর পরামর্শ দিয়েছেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক কেভিন পিটারসেনও।

উল্লেখ্য, শেষ ৭৭টি আন্তর্জাতিক ইনিংসে কোনও শতরান পাননি কোহলী। সময়ের হিসাবে প্রায় তিন বছর। আইপিএল থেকে তেমন রানের মধ্যে নেই রোহিতও। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাঁদের বিশ্রাম দেওয়া হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে এক দিনের সিরিজের দলেও রাখা হয়নি তাঁদের।