WWWW বল হাতে তাণ্ডব,ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটিংকে একা হাতে ধ্বংস করে রেকর্ড গড়লেন বাংলার মুকেশ !

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে খুব সহজে জয়লাভ করে নিয়েছিল ভারত। যেটা দেখে এরকমটাই মনে করা হচ্ছিল যে এই সিরিজে ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করে দেবে, কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে অদ্ভুত ভাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে পরাজিত হতে হয় ভারতীয় দলকে। দ্বিতীয় ম্যাচে পরাজয়ের পরেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে তাহলে কি আবার রোহিত বিরাটদের তৃতীয় ম্যাচে খেলানো হবে কারণ সিরিজটা তো আর হারতে দেওয়া যায় না, অথচ তাদেরকে না নিয়ে যে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারতীয় দল সেটাই প্রমাণ করলেন ভারতের যুব তারকারা, ব্যাট হাতে করে দেখালেন শুভমান গিল, সঞ্জু স্যামসান ও ঈশান কিশন। কিন্তু বল হাতে তাণ্ডব চালালেন মুকেশ কুমার। সাথেই গড়লেন অনবদ্য রেকর্ড।

ঈশানের কিষাণ এর 77, শুভমন গিলের ৮৫ রান এবং স্যামসানেযর অর্ধশত রান আবার হার্দিকের দুর্দান্ত ফিনিশে ভারত ৩৫১ রান পর্যন্ত পৌঁছে যায়। তারপরেই কাজটা ছিল বোলারদের জন্য। টেস্ট সিরিজে প্রথম ম্যাচ খেলার পর থেকেই মুকেশ কুমার প্রমাণ করেছিলেন যে তিনি লম্বা সময় ভারতীয় দলে খেলার জন্য এসেছেন। আর ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে তিনি প্রমাণ করে দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের একের পর এক উইকেট নিয়ে যেখানে অন্য কোন বোলার উইকেট পারছিলেন না পরপর একের পর এক ক্রিকেট নিয়ে তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটিং কে একা হাতে ধ্বংস করে দিলেন।

```

প্রথমেই কাইল মেয়ারস এবং তার সাথেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরো এক ওপেনার ব্র্যান্ডন কিং দুজনকেই প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখিয়ে দেন মুকেশ কুমার। মাত্র সাত রানের মাথায় দুটি উইকেট হারিয়ে সমস্যায় পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, কিছু বুঝে ওঠার আগেই ১৭ রানের মাথায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের তৃতীয় উইকেট তুলে নেয় মুকেশ কুমার। ৩৫১ রানের মতো একটা বড় টার্গেট তাড়া করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোমর ভেঙে দেয় মুকেশ কুমার একা হাতেই।

প্রথম পাঁচ ওভার বল করে মুকেশ কুমারের একটি মেডেল ছিল তার সাথে তিনটি উইকেট মাত্র ১৫ রান দিয়ে। যা স্পষ্ট করে দিয়েছিল যে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে এই ম্যাচে জয়লাভ করতে সবথেকে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে মুকেশ কুমার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস শেষ হতে হতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে রীতিমতো নেস্তানাবুদ করে দেন মুকেশ কুমার।

```

শেষ পর্যন্ত ভারতীয় দলের অনবদ্য বোলিং এর সামনে রীতিমতো তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং। আর ওয়ানডে সিরিজে জয়লাভ করে ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে নিজেদের রেকর্ড বজায় রেখেছে।