আন্তর্জাতিক ম্যাচে লজ্জা: এত বড় ভুল কিভাবে হল একটা আন্তর্জাতিক ম্যাচে

রবিবার বৃষ্টিতে ম্যাচ ভেস্তে যাওয়ার পর, সোমবারও নির্ধারিত সময়ে খেলা শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে সব বাধা বিপত্তি কাটিয়ে বিকেল ৪টে ৪০ নাগাদ শুরু হয় ভারত বনাম পাকিস্তান এশিয়া কাপের সুপার ফোর পর্বের খেলা। রবিবার যখন খেলা বন্ধ হয় হয়, তখন ভারতের স্কোর ছিল ২৪.১ ওভারে ২ উইকেটে ১৪৭ রান। সেখান থেকে বিরাট কোহলি এবং কেএল রাহুল মিলে ভারতকে বড় স্কোরের দিকে নিয়ে গিয়েছে। দুই তারকাই এদিন নিজেদের সেঞ্চুরি পূরণ করেন। আর ভারতকে চড়িে দেন রানের পাহাড়ে।

কোহলি-রাহুল মিলে তৃতীয় উইকেটে অপরাজিত ২৩৩ রান যোগ করেন। ভারত নির্দিষ্ট ৫০ ওভারে ২ উইকেট হরিয়ে করে ৩৫৬ রান। কোহলি ৯৪ বলে অপরাজিত ১২২ রানের ঝোড়ে ইনিংস খেলেন। তাঁর ইনিংসে রয়েছে ৯টি চার এবং ৩টি ছক্কা। কেএল রাহুল তাঁর কামব্যাক ম্যাচে অপরাজিত থাকেন ১০৬ বলে ১১১ করে। মারেন ১২টি চার এবং ২টি ছক্কা।

```

তিনি তাঁর কব্জি ব্যবহার করে শাদাব খানের বলে ডিপ মিড-উইকেটে ৮৪ মিটার লম্বা ছক্কাটি হাঁকিয়েছিলেন। রাহুলের অবিশ্বাস্য দক্ষতা এবং আত্মবিশ্বাস দেখে নন-স্ট্রাইকার এন্ডে দাঁড়িয়ে থাকা বিরাট কোহলি এবং ড্রেসিংরুমে বসে থাকা রোহিত শর্মাও মুগ্ধ হন।কেএল রাহুলের এমন সাহসী শট দেখে স্টেডিয়ামের ক্রিকেট ভক্তরাও উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠেন। ড্রেসিংরুমে বসে রোহিত শর্মা তো পুরো হাঁ হয়ে যান। মাথায় হাত দিয়ে তাঁর সেই প্রতিক্রিয়া ছিল দেখার মতোই। এদিকে রাহুলের অসাধারণ স্ট্রোকপ্লে দেখে বিরাট কোহলির চোখেমুখেও ছিল বিস্ময়ের ছাপ।

প্রায় চার মাস পর চোট সারিয়ে দলে ফিরেই একেবারে আগুনে মেজাজে কেএল রাহুল। শাহিন আফ্রিদি থেকে নাসিম শাহ, শাদাব খান- যে পাক বোলারকেই পেয়েছেন পিটিয়ে ছাতু করেছেন। পাক বোলারদের একেবারে কালঘাম ছুটিয়ে দিয়েছেন তিনি।একের পর এক চোখ ধাঁধানো শট খেলেছেন রাহুল। একেবারে পুরনো ছন্দে। কেএল-এর ইনিংস দেখে বোঝার কোনও উপায় ছিল না যে, দীর্ঘ দিন পর চোট সারিয়ে তিনি দলে ফিরছেন। রাহুলের ব্যাটে সেই পুরনো ঝলক দেখে নিঃসন্দেহে খুশি হবে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। সঙ্গে উচ্ছ্বসিত ভক্তরাও।রাহুলের শটগুলির মধ্যে শাদাব খানের বলে একটি ছক্কা হাঁকানোর ভিডিয়ো এখন ভাইরাল।

```

ঠিক যেন রুপকথার গল্পগুলো গুছিয়ে লিখে চলেছেন তিনি। তাই তো তিনি কিং কোহলি। একের পর এক রেকর্ড। স্তূপ জমে গিয়েছে। কোন রেকর্ডটা নেই বিরাট কোহলির ঝুলিতে? ভাবতে বসলে একটাই নাম সামনে আসে। তিনি সচিন তেন্ডুলকর।সচিনের মোট ১০০টি সেঞ্চুরির নজির কোহলি কি স্পর্শ করতে পারবেন? তা নিয়ে প্রতি দিনই জল্পনা চলছে। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট কিংবদন্তির ৪৯টি ওডিআই সেঞ্চুরির রেকর্ড স্পর্শ করাটা এখন বিরাট কোহলির কাছে শুধুই যেন সময়ের অপেক্ষা। সোমবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে কোহলি তাঁর ওডিআই ক্যারিয়ারের ৪৭তম সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন। তাও মাত্র ২৬৭ ইনিংসে। কত ইনিংসে করেছিলেন শচীন ?