‘যাই করি ইন্ডিয়া টিমে চান্স পাবো না,আমার জায়গায় অন্য কেউ..”ঋদ্ধির মন্তব্যে স্যালুট নেটিজেনদের

ভারতীয় দলে আর সুযোগ পাওয়া কার্যত অনিশ্চিত। আইপিএলে ভালো খেলেও শুধুমাত্র বয়সের কারণে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট দলে নিচ্ছে না ঋদ্ধিমান সাহাকে। সেই কারণে ঋদ্ধিমান সাহা আসন্ন দলীপ ট্রফি থেকে নিজের নাম তুলে নিলেন।ঋদ্ধি জানান, ‘আর খেলে কি করবো? নতুন কেউ খেলুক যার সামনে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকবে।‘ গতবছর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পরে ভারতীয় কোচ রাহুল দ্রাবিড় ঋদ্ধিকে ডেকে জানান তাঁকে আর ভারতীয় দলে বয়সের জন্য ভাবা হবে না। সে যেন অবসরের কথা ভাবেন।এরপর..

ঋদ্ধি সুযোগ না পেয়ে মুখ খোলেন সংবাদমাধ্যমের সামনে। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের (CAB) সহ সচিব দেবব্রত দাস তার কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এরপর যখন ঋষভ পন্থ চোট পান ঋদ্ধিমানের কথা প্রায় সব প্রাক্তন ক্রিকেটার ভাবতে শুরু করেছিলেন। বিরাট কোহলি ঋদ্ধির প্রশংসা করলেও ভারতীয় নির্বাচকরা তাঁকে দলে নেয়নি।আইপিএলে ব্যাট হাতে ভালো পারফরমেন্সও করেন ঋদ্ধি। তার সত্ত্বেও ভারতীয় দলে তার জায়গা হয়নি, রান করতে পারবে না জানা সত্ত্বেও কে এস ভরতকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে হারতে নিয়ে যায় ভারত।

```

রাঁচিতে ১৫ সদস্যের দল বেছে নেন পূর্বাঞ্চলীয় নির্বাচকরা।ইস্ট জোনকে নেতৃত্ব দেবেন অভিমন্যু ঈশ্বরণ। বাংলা থেকে তিনি ছাড়াও ১৫ সদস্যের দলে রয়েছেন আরও সাত জন। তাঁরা হলেন অভিষেক পোড়েল, সুদীপ ঘরামি, অনুষ্টুপ মজুমদার, পেসার মুকেশ কুমার, আকাশ দীপ, ঈশান পোড়েল এবং বাঁ হাতি স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার শাহবাজ আহমেদ।ঋদ্ধির মতো ঝাড়খন্ডের ঈশান কিষানও নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন। তিনি মূলত বিশ্রাম নেবেন। তবে ঋদ্ধিমান সাহার নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার কারণটা একদম আলাদা, তিনি না খেললে নিশ্চয়ই তার জায়গায় কোন এক তরুণ ক্রিকেটার সুযোগ পাবে যার সামনে ভারতীয় দল পর্যন্ত যাওয়ার সময় থাকবে। তাই যুব ক্রিকেটারদের কথা মাথায় রেখে নিজের নাম তুলে নিয়েছেন ঋদ্ধিমান সাহা, তাকে ময়দানে না দেখতে পাওয়ার কষ্ট যেমন রয়েছে তার পাশাপাশি তার এই সিদ্ধান্তের জন্য তাকে স্যালুট জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

পূর্বাঞ্চলীয় দল – অভিমন্যু ঈশ্বরণ (অধিনায়ক), শান্তনু মিশ্র, সুদীপ ঘরামি, রিয়ান পরাগ, অনুষ্টুপ মজুমদার, বিপিন সৌরভ, অভিষেক পোড়েল, কুমার কুশাগ্র, শাহবাজ নাদিম (সহ অধিনায়ক), শাহবাজ আহমেদ, মুকেশ কুমার, আকাশ দীপ, অনুকূল রায়, মুরা সিং এবং ঈশান পোড়েল।

```

সব মিলিয়ে ঋদ্ধিমান এর কেরিয়ার টা যেমনটা তিনি চেয়েছিলেন সেরকম আর হলো না। যা বাংলার ক্রিকেট ভক্তদের কাছে একটা বড়ো আক্ষেপ।