নিজে দুরন্ত ইনিংস খেললেও অন্য এক ক্রিকেটারকে জয়ের সব কৃতিত্ব দিলেন রোহিত শর্মা !

এই নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই যে ২০২৩ বিশ্বকাপের সব থেকে কন্সিস্ট্যান্ট এবং ভালো পারফর্মিং দল গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে টিম ইন্ডিয়া যারা এখনো পর্যন্ত এই টুর্নামেন্ট অপরাজিত রয়েছে। ভারতীয় দলের জয়ের ধারা আটকাতে পারছে না বিশ্বের কোন দল তবে ইন্ডিয়ার জয়ের পিছনে অন্যতম কারণ রোহিত শর্মার আগ্রাসী ব্যাটিং যা ওপেনিং এ ভারতীয় দলকে একটা দৃঢ়তা জোগাচ্ছে। যদিও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দুরন্ত জয় লাভ করা সত্ত্বেও রোহিত শর্মা ভারতের অন্য এক ক্রিকেটারকেই এই জয়ের সব কৃতিত্ব দিলেন।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে রীতিমতো একটা বোলিং সহায়ক পিছের উপর ভারতীয় দল প্রথমে স্ট্রাগল করতে শুরু করে এবং রীতিমতো 40 রানের মাথায় তিনটি উইকেট হারিয়ে ফেলে এমন সময় দলের দায়িত্ব নেন ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা এবং তার সাথে ছিলেন কে এল রাহুল। দুজনে মিলে ৯১ রানের পার্টনারশিপ করেন এবং পরবর্তীতে কে এল রাহুল আউট হয়ে গেলে রোহিত শর্মা ইনিংস চালিয়ে যান এবং ব্যক্তিগত ৮৭ রানের মাথায় তিনি আউট হন। রোহিত শর্মা যদি এই ইনিংস টি খেলতে ব্যর্থ হতেন তাহলে কিন্তু ভারতীয় দল ২৩০ করতে পারত না আর সেক্ষেত্রে ইংল্যান্ড আরও একটু এগিয়ে থাকতো।

```

তবে রোহিত শর্মা ব্যক্তিগতভাবে মনে করেন যে ভারতীয় দলের বোলাররা যে ধরনের পারফরমেন্স করেছে এবং দায়িত্ব নিয়ে যেভাবে বোলিং করেছে তাতে ভারতীয় দলের এই জয়ের অন্যতম দাবিদার মোহাম্মদ শামি এবং বুমরা। রোহিত শর্মার এই ব্যক্তিগত ইনিংস ভারতীয় দলের জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ হলেও তিনি ব্যক্তিগতভাবে মনে করেন যে তার ব্যাটিং অবশ্যই ভালো হয়েছে, তবে তার থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ভারতীয় বোলাররা যেভাবে দাপটের সাথে বোলিং করেছে এবং ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের রীতিমতো নেস্কতনাবুদ করে দিয়েছে।।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এই জয় দিয়ে অনেক কিছু প্রমাণিত হয়ে গেছে, ভারতীয় সমস্ত ক্রিকেট ভক্তের অপেক্ষা করেছিলেন যে বিশ্বকাপের আগে ভারতীয় দলের জন্য একটা হার আসে সেক্ষেত্রে দলের মধ্যে যদি কিছু সমস্যা থাকে সেটা সেমিফাইনাল এর আগেই ধরা পড়ে যাবে, কিন্তু ভারতীয় দল আজকে যে সমস্যার মধ্যে পড়েছিল তা সত্বেও তারা একটা জয়লাভ করতে পেরেছে সুতরাং এই ভারতীয় দলের যে কোন সমস্যা থাকুক না কেন কোনভাবেই টিম ইন্ডিয়াকে জয়ের ধারা থেকে আটকে রাখা যাবে না।।

```

অর্থাৎ যে দল ৪০ রানে তিন উইকেট পড়ে যাওয়ার পরেও ম্যাচে জয়লাভ করতে পারে এবং তাদের বোলাররা এতটা দায়িত্ব সহকারে বোলিং করতে পারে সেই দলকে কোনভাবেই আটকানো সম্ভব নয়। অর্থাৎ এখান থেকে একটা বিষয় পরিষ্কার যে কোনভাবে যদি সেমিফাইনাল ম্যাচেও ভারতীয় দলের একাধিক উইকেট এইভাবে হারিয়ে যায় সেই ক্ষেত্রেও টিম ইন্ডিয়ার খুব একটা সমস্যা হবে না।

সব মিলিয়ে টিম ইন্ডিয়ার এই পারফরম্যান্স বিশ্ব ক্রিকেটে একটা আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।