“ওকে T20 বিশ্বকাপ দলে চাই..”নিজে সেঞ্চুরি করেও জয়ের কৃতিত্ব অন্য একজনকে দিলেন রোহিত শর্মা !

গতবছর আইপিএলের (IPL) পর থেকে ভারতীয় ক্রিকেটে একটি নামকে ঘিরেই সবচেয়ে বেশি চর্চা হয়েছে। ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্য়াটে ১৫ ম্য়াচে ১১ ইনিংসে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৩৫৬ রান। যাঁর গড় ৮৯.০০। স্ট্রাইক রেট ১৭৬-এর উপর। রয়েছে দু’টি অর্ধ-শতরানও। পেয়ে গিয়েছেন ‘ফিনিশার’ তকমাও। বলে দেওয়ার প্রয়োজন নেই যে, তিনি কলকাতা নাইট রাইডার্সের (KKR) তারকা ক্রিকেটার রিঙ্কু সিং (Rinku Singh)। আর এই তরুণ ব্য়াটারে মোহিত হয়েছেন খোদ ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মাই (Rohit Sharma)। আর সেই রিংকু সিংকে নিয়েই এবার বড় মন্তব্য করলেন রোহিত শর্মা।

তিনি কোথাও বুঝিয়ে দিলেন যে, আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপে (T20 World Cup 2024) রিঙ্কুর আসন প্রায় নিশ্চিত। ম্যাচের পর রোহিত বলেন, ‘শেষ কয়েকটি সিরিজে রিঙ্কু দেখিয়েছে যে, ও ব্য়াট হাতে কী করতে পারে। খুবই শান্ত প্রকৃতির। নিজের শক্তিও খুব ভালোভাবে জানে। ও ওর বয়সে দাঁড়িয়ে যা করছে, তাই ওর থেকে প্রত্যাশা করা হয়েছে। এবং ভারতের জন্য সত্যিই ভাল করেছে। দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য় যা দরকার, সেটাই করছে। শেষের দিকে এমন একজনকেই চেয়েছিলাম। আমরা জানি যে, আইপিএলে ও কী করেছে এবং ভারতের হয়েও সেই খেলা বহন করে নিয়ে যাচ্ছে।’

```

ঘরের মাঠে আফগানিস্তানকে তিন ম্য়াচের টি-২০ সিরিজে ভারত হোয়াইটওয়াশ করেছে। বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে নিয়মরক্ষার ম্য়াচ হয়ে গিয়েছিল রুদ্ধশ্বাস সাসপেন্স থ্রিলার। জোড়া সুপার ওভার লিখেছে ম্যাচের নিয়তি। বেঙ্গালুরুতে টস জিতে ভারত প্রথমে ব্য়াট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। ব্য়াট করতে নেমে ভারতের চার উইকেট চলে গিয়েছিল মাত্র ২২ রানে। মাত্র পাঁচ ওভারের মধ্য়ে ভেঙে পড়েছিল ভারত। একটা সময় ১২০-১৪০ হবে কিনা, তা নিয়েই সন্দিহান হয়ে পড়েছিলেন একাধিক ভারতীয় অনুরাগীরা। সেখান থেকে রোহিত-রিঙ্কুর সৌজন্য়ে ভারতের রান হয় ২১২!

রোহিত এবং রিঙ্কু ভেবেই নিয়েছিলেন, ‘আজ কুছ তুফানি করতে হ্য়ায়’! পঞ্চম উইকেট পার্টনারশিপে তাঁরা যোগ করলেন ১৯০ রান। নিলেন মাত্র ১০০টি বল। যা রেকর্ড। রোহিত ৬৯ বলে ১২১ রানে অপরাজিত থাকলেন। ১১টি চার ও আটটি ছক্কা হাঁকালেন ১৭৫.৩৬-এর স্ট্রাইক রেটে। রিঙ্কু করলেন ৩৯ বলে ৬৯ রান। ২টি চার ও ৬টি ছয় মারলেন কেকেআরের তারকা। রিঙ্কুর স্ট্রাইক রেট ছিল ১৭৬.৯২।

```

আন্তর্জাতিক টি-২০ ফরম্য়াটে ভারতের এটাই সর্বোচ্চ রানের পার্টনারশিপ। গত দুই মরসুমে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে দুরন্ত পারফরম্যান্স করেছিলেন রিঙ্কু। ২০২৩ সালের আইপিএল-এর ১৪ ম্যাচে ৪৭৪ রান করেছিলেন রিঙ্কু। সর্বোচ্চ লখনউ সুপার জায়ান্টের বিরুদ্ধে ৩৩ বলে অপরাজিত ৬৭ রান। গড় ৫৯.২৫। স্ট্রাইক রেট ১৪৯.৫৩। সঙ্গে ছিল চারটি অর্ধ শতরান।

সব মিলিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে যে রিঙ্কু সিং এর জায়গা রীতিমতো কনফার্ম, এই নিয়ে কোন সন্দেহ থাকার আর জায়গা নেই।