বিগ আপডেট : ম্যাচ শুরুর আগেই ভারতীয় দলে তীব্র চোট! ছিটকে গেলেন মিডিল অর্ডার ব্যাটসম্যান !

ভারত বনাম ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ শুরু আগেই ভারতীয় শিবিরে আতঙ্ক। এই আতঙ্কের কারণ হল চোট। মঙ্গলবার অনুশীলন করার সময়ে চোট পেয়ে বসেই পড়লেন শ্রেয়স আইয়ার। আসলে এদিন নেটে ব্যাটিং অনুশীলন করার সময় ডান হাতের কব্জিতে বল লাগে শ্রেয়স আইয়ারের। জানা গিয়েছে, থ্রোডাউন নেওয়ার সময় ডান হাতের কব্জিতে আঘাত পান শ্রেয়স আইয়ার। তিনি আবার ব্যাট করার চেষ্টা করেন কিন্তু এক বল খেলার পরেই তিনি নেট থেকে বেরিয়ে যান। তাঁকে আইস প্যাক লাগাতে দেখা গিয়েছে।

চোট পাওয়ার পরে মাঠ থেকে বেরিয়ে কিছুক্ষণ প্লেয়ার জোনে বসেছিলেন শ্রেয়স আইয়ার। সেই সময়ে তাঁকে নিজে হাতে বরফ লাগাচ্ছিলেন। এরপরে দলের সতীর্থ ও সাপোর্টস্টাফরা তাঁর সঙ্গে কথা বলেন এবং তাঁর চোট সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন। সোশ্যাল মিডিয়াতে সেই ছবি ভাইরাল হতে থাকে।এই ছবি দেখার পরে অনেকেই ভাবতে থাকেন তাহলে কি শ্রেয়স আর খেলতে পারবেন না। টিম ইন্ডিয়ার শিবিরেও উদ্বেগ তৈরি হয়েছিল। অনেকের মনে নানা প্রশ্ন উঠতে তৈরি হয়েছিল। তবে সকলকে চিন্তা মুক্ত করে আবার নেটে ব্যাট করতে ফেরেন শ্রেয়স আইয়ার।শ্রেয়স আইয়ারের চোটের কতটা গুরুতর তা এখনও জানা যায়নি।

```

শ্রেয়স যখন নেটে থ্রো-ডাউনার বলের বিরুদ্ধে ব্যাট করছিলেন তখন তাঁর কব্জিতে এই চোটটি লেগেছিল। শ্রেয়স চোট নিয়ে এখনও দলের পক্ষ থেকে কোনও খবর দেওয়া হয়নি। যদি শ্রেয়সকে না পাওয়া যায় তাহলে সমস্যায় পড়বে টিম ইন্ডিয়া।কারণ প্রথম দুই টেস্টে পাওয়া যাচ্ছে না কোহলিকে। আইয়ারের চোট টিম ইন্ডিয়ার জন্য সমস্যা তৈরি করতে পারে, কারণ তিনি দলের মিডল অর্ডারের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। প্রথম দুই টেস্টে নেই বিরাট কোহলি। একদিন আগে ব্যক্তিগত কারণে প্রথম দুই ম্যাচ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন তিনি।

এমন পরিস্থিতিতে মিডল অর্ডারের দায়িত্ব শুধু আইয়ার ও কেএল রাহুলের ওপরই রয়েছে। কোহলির জায়গায় রিঙ্কু সিং, রজত পতিদার ও সরফরাজ খানের মধ্যে একজন সুযোগ পেতে পারেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।এদিকে দুই দলই হায়দরাবাদে অনুশীলন করতে ব্যস্ত রয়েছে। একদিন আগেই ইংল্যান্ড দল সেখানে পৌঁছে গিয়েছে। টেস্ট সিরিজের ওপেনিং ম্যাচের আগে হায়দরাবাদে অনুশীলন করছে দুই দলই।

```

একদিন আগেই রবিবার রাতে হায়দরাবাদ পৌঁছেছে ইংল্যান্ড দল। এর আগে ইংল্যান্ড আবু ধাবিতে ভারতের মতো একই ট্র্যাকে অনুশীলন করেছিল। সেখানে ভারতীয় পেসার মহম্মদ শামির ভিডিয়ো দেখে স্ট্রেট সুইং বোলিং শিখছিলেন ফাস্ট বোলার অলি রবিনসন।

সব মিলিয়ে ভারত ইংল্যান্ড সিরিজ যে কঠিন এক সিরিজ হতে চলেছে সেই নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।