রিভিউ নিতে রোহিতকে রাজি করার চেষ্টা কুলদীপের, তারপর যা হলো?দেখুন ভাইরাল ভিডিয়ো

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ হেরে এমনিতেই চাপে রয়েছে ভারত। তবে স্বস্তির খবর একটাই, দ্বিতীয় টেস্টে টিম ইন্ডিয়া ইংল্যান্ডকে পাহাড় সমান রানের টার্গেট দিয়েছে। অবস্থা এমন যে এই মুহূর্তে যে কেউ জিততে পারে এই ম্যাচ। ইংল্যান্ডের সামনে লক্ষ্যমাত্রা পাহাড় সমান হলেও, সুবিধার ব্যাপার হলো যে তাদের হাতে রয়েছে এখনও দুটো দিন। বলা যায় ধীর গতিতে খেললেও ম্যাচ নিজেদের ঝুলিতে তোলা সম্ভব।

অন্যদিকে, সিরিজে ঘুরে দাঁড়াতে হলে জয় পাওয়া অত্যন্ত জরুরি টিম ইন্ডিয়ার কাছে। তবে তৃতীয় দিনের খেলায় ঘটে একটি ঘটনা, যার পর টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক রোহিত শর্মা রীতিমতো মজা ওড়ান দলের তারকা স্পিনার কুলদীপ যাদবের। এই মুহূর্তটি চোখের নিমেষে ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে এবং অধিকাংশ ক্রিকেটপ্রেমী দাবি করেন যে রোহিত শর্মা অধিকাংশ সময়েই সঠিক সিদ্ধান্ত নেন ডিআরএসের ক্ষেত্রে। অনেকে আবার ভিন্ন মতও প্রকাশ করেন। তবে দিনের শেষে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার এখানেই যে একটি রিভিউ হারানো থেকে কোনও রকমে রক্ষা পেল গোটা দল।

```

রবিবার, অর্থাৎ ৪ ফেব্রুয়ারি, ছিল চতুর্থ দিনের খেলা। বিনা উইকেটে ২৮ রান নিয়ে খেলতে নামেন টিম ইন্ডিয়ার দুই ওপেনার যশস্বী জসওয়াল ও রোহিত শর্মা। তবে দ্রুতই দুজনকে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়ে দেন ইংল্যান্ডের তারকা পেসার জেমস অ্যান্ডারসন। এরপর শুভমন গিলের ব্যাটের উপর ভর করে একটি বড় রান স্কোরবোর্ডে তুলতে সফল হয় ভারত। টেস্ট ক্রিকেটে তিনি হাকালেন নিজের তৃতীয় শতরান।অন্যদিকে, ৩৯৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে দ্রুত গতিতে রান করা শুরু করে ইংল্যান্ড। দেখুন সেই ভিডিও:

নেমেই পেস বোলারদের আক্রমণ করা শুরু করেন বেন ডাকেট ও জ্যাক ক্রলি। তবে তৃতীয় ওভারে ঘটে একটি ঘটনা।জসপ্রীত বুমরাহের বোলিংয়ের মুখোমুখি হয়েছিলেন জ্যাক ক্রলি এবং একটি বল ব্যাটের পাশ দিয়ে বেরিয়ে সোজা চলে যায় উইকেটরক্ষক কেএস ভারতের হাতে। এরপরই দুজনে আম্পায়ারের কাছে আবেদন করেন আউটের এবং রাজি করানোর চেষ্টা করেন অধিনায়ক রোহিত শর্মাকেও। তাদের সঙ্গে যোগ দেন দলের তারকা স্পিনার কুলদীপ যাদবও।

```

তবে শেষে রোহিত রাজি হননি।এরপরই রিপ্লেতে দেখায় যে বল কোনও রকমেই ব্যাটে লাগেনি। তা প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো হাসতে হাসতে কুলদীপকে দেখে তালি মারতে থাকেন রোহিত। সেই ভিডিয়োটি এই মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় চারিদিকে এবং ক্রিকেটপ্রেমীরা করতে শুরু করেন কমেন্ট।

অধিকাংশই এটা দাবি করেছেন যে অনেক বুঝে শুনে ডিআরএস নেন রোহিত শর্মা এবং বেশিরভাগ সময়েই তা সঠিক প্রমাণ হয়। অন্যদিকে আরেকাংশ দাবি করেন যে কোনরকমে একটি গুরুত্বপূর্ণ রিভিউ হারানো থেকে বাঁচলো টিম ইন্ডিয়া।