‘এমন দল যে জাহান্নামে..’ভারতীয় দলকে নিয়ে বি’স্ফোরক পাক ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ!তোলপাড়

পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ নতুন করে বিশ্বকাপ বয়কটের দাবি তুললেন। পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক বরাবরই বিতর্কিত মন্তব্য করে থাকেন। নতুন করে ফের আগুন ঘি ঢাললেন মিয়াঁদাদ।এমনিতেই এশিয়া কাপ ঘিরে দুই দেশের মধ্যে তীব্র ঝামেলা হয়েছে। পাকিস্তানে খেলতে যেতে ভারত অস্বীকার করায়, তীব্র ঝামেলা শুরু হয়। বারেবারে সংঘাত বেঁধেছে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে। শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের দেওয়া হাইব্রিড মডেলেই হবে এশিয়া কাপ। আর এতে কিছুটা হলেও বিসিসিআই এবং পিসিবি-র মধ্যে ঝামেলায় ধামাচাপা পড়েছে।তবে ভারত এশিয়া কাপ খেলতে পাকিস্তানে না আসা নিয়ে ফের জলঘোলা শুরু করলেন মিয়াঁদাদ।

বরাবারই মিয়াঁদাদ ভারতের কট্টর সমালোচক। তিনি নতুন করে দাবি করেছেন, এই বছরের ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য পাকিস্তানের পড়শি দেশে যাওয়া উচিত নয়। যদি না বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) তাদের দল পাকিস্তানে পাঠায়।আইসিসি-র তৈরি ওডিআই বিশ্বকাপের খসড়া সূচি অনুযায়ী, ১৫ অক্টোবর আমদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে বহু প্রতীক্ষিত লড়াই হওয়ার কথা রয়েছে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে। তবে ৬৬ বছরের পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক মিয়াঁদাদের মতে, আগে পাকিস্তান সফরের পালা ভারতের।মিয়াঁদাদ বলেছেন, ‘পাকিস্তান ২০১২ এবং এমন কী ২০১৬ সালে ভারতে গিয়েছিল। আর এখন ভারতীয়দের এখানে আসার পালা। আমাকে যদি সিদ্ধান্ত নিতে হয়, আমি কখনও-ই ভারতে কোনও ম্যাচ খেলতে যাব না, এমন কী বিশ্বকাপও নয়। আমরা সব সময়ে ওদের (ভারত) সঙ্গে খেলতে প্রস্তুত। কিন্তু ওরা কখনও-ই একই ভাবে সাড়া দেয় না।’

```

তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘পাকিস্তান ক্রিকেট যে ছোট নয়, তার প্রমাণ অনেক বার দিয়েছি আমরা। আমরা এখনও কোয়ালিটি প্লেয়ার তৈরি করছি। তাই আমি মনে করি না যে, আমরা ভারতে না গেলে আমাদের জন্য কোনও পার্থক্য হবে।’ প্রসঙ্গত, ভারত শেষ বার ৫০ ওভারের এশিয়া কাপের জন্য ২০০৮ সালে পাকিস্তানে এসেছিল। এর পর থেকে দুই দেশের রাজনৈতিক উত্তেজনার কারণে ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সম্পর্ক স্থগিত রয়েছে।

তিনি এখানেই থামেননি। আরও বলেছেন, ‘আমাদের ভারতকে দরকার নেই। আমরা ওদের থেকে ভালো। আমাদের ক্রিকেট ওদের থেকে ভালো। আমরা ওদের পাত্তা দিই না। আমাদের পর্যাপ্ত টাকা, মাঠ এবং ক্রিকেটার আছে। আমাদের সব ক্রিকেটারই বিশ্বে নিজেদের নাম তৈরি করছে। তোমরাদের আসতে হবে না। জাহান্নমে যাও। আমাদের কিছু যাবে আসবে না।’মিয়াঁদাদ মনে করেন, খেলাধুলাকে রাজনীতির সঙ্গে মেশানো উচিত নয়।

```

তিনি বলেছেন, ‘আমি সব সময়ে বলে আসছি যে, কেউ পড়শি নির্বাচন করতে পারে না। তাই একে অপরকে সহযোগিতা করাই ভালো। ক্রিকেট এমন একটি খেলা যা মানুষকে কাছাকাছি নিয়ে আসে এবং দেশের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এবং অভিযোগ মিটিয়ে দিতে পারে।’এশিয়া কাপ যে হাইব্রিড মডেলে হচ্ছে, এই সিদ্ধান্তেও খুশি নন মিয়াঁদাদ। তিনি বলেছেন, ‘প্রতি বারের মতো এ বারও ভারতীয় টিম পাকিস্তানে খেলতে আসছে না। পাকিস্তানকেও কিন্তু এ বার দৃঢ় পদক্ষেপ নিতে হবে।’