“সবাইকে বলছি..বিশ্বকাপে আমি পারবো না,ক্ষমা করো” হাতে পায়ে ধরে ক্ষমা চাইলেন কোহলি !

বিগত চার বছর ধরে ভারতীয় দলের ক্রিকেট ভক্তরা যে টুর্নামেন্টের অপেক্ষা করে আসছে সেই ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ এবার এসে গেছে। বিশ্বকাপের জন্য ভারতীয় ভক্তদের অপেক্ষা বেশি ছিল তার কারণ ২০১৯ সালের রীতিমতো জেতা বিশ্বকাপ তারা ফিরে এসেছে, তাই ২০২৩ সালের বিশ্বকাপ কে টার্গেট করে যেমন ভারতীয় দল এগিয়েছে তেমনি ভারতীয় ক্রিকেট ভক্তদের অনেক বেশি আশা রয়েছে টিম ইন্ডিয়ার উপর। তবে শুধুমাত্র ক্রিকেট ভক্তরা নয় ক্রিকেটারদের অনেক বন্ধু, ফ্যামিলি, কিছু কাছের ক্রিকেট ভক্ত অনেকেরই অনেক আশা রয়েছে বিরাট কোহলির থেকে যা তিনি পূর্ণ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন।

বিশ্বকাপ এলে সবথেকে বেশি যে জিনিসটা নিয়ে টানাটানি শুরু হয় সেটা হল ম্যাচের টিকিট, একটা সময় ছিল যখন বিভিন্ন ক্রিকেটাররা তার আশেপাশে আত্মীয়-স্বজনদের টিকিটের ব্যবস্থা করে দিতেন কিন্তু এখন পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ যে এক একটি টিকিট পাওয়া মানে যুদ্ধে যাওয়ার সমান। তাই তার ক্রিকেট ভক্তদের এবং বন্ধুবান্ধবদের উদ্দেশ্যে এবার বড় মন্তব্য করে এবার রিকোয়েস্ট করে দিলেন বিরাট কোহলি।

```

বিরাট কোহলি তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে লিখেছেন, “বিশ্বকাপ সিজন চলে এসেছে, আমি আমার সমস্ত বন্ধু-বান্ধব এবং ক্রিকেট ভক্তদের উদ্দেশ্যে জানাতে চাই যে দয়া করে আমার কাছে টিকিট চেয়ে লজ্জা দেবেন না, আমি তার ব্যবস্থা করতে পারবো না। দয়া করে এবারের বিশ্বকাপটা যারা টিকিট পাচ্ছেন না তারা বাড়ি থেকে এনজয় করুন “

অর্থাৎ টিকিট নিয়ে যে টানাটানি চলছে সেখান থেকে নিজেকে দূরে রাখছেন বিরাট কোহলি যে টিকিটের ব্যবস্থা করে দিতে তিনি পারবেন না। পাশাপাশি ভারতীয় দল তাদের দুটি প্রাকটিস ম্যাচ এই বৃষ্টিতে ভেস্তে গেছে এবং একমাত্র ভারতই প্র্যাকটিস ম্যাচের কোনোটিতে ব্যাট বা বল করতে পারেনি।

```

তবে সম্প্রতি ঘরের মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজ খেলেছে টিম ইন্ডিয়া, আর তার আগে এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ভারত যেখানে তারা যথেষ্ট কম্পিটিটিভ ক্রিকেট খেলেছে, এমনকি পাকিস্তান কেউ তারা পরাজিত করেছে সুতরাং খুব বেশি যে প্র্যাকটিস ম্যাচের প্রয়োজন তেমনটা নয়।

সব মিলিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট ভক্তরা রীতিমত এরকম মনে করছেন যে এ বছরে অন্তত ভারতীয় দল বিশ্বকাপে জয়লাভ করতে পারে। কারণ ভারতীয় দলের প্রত্যেক প্লেয়ার খুবই ভালো ফর্মে রয়েছে।