“মাহি ভাই যদি তোমার পারফরমেন্স দেখে…” শিবম দুবেকে নিয়ে বড়ো মন্তব্য করলেন সুরেশ রায়না !

দক্ষিণ আফ্রিকাতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ড্র হয়েছিল তবে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচেই জয়লাভ করেছে টিম ইন্ডিয়া। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সব উইকেট হাতে নিয়ে ম্যাচ জিতেছে টিম ইন্ডিয়া যার জন্য অন্যতম কৃতিত্ব রয়েছে শিবম দুবের। টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ভারতীয় ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা এবং আফগানিস্তানকে প্রথমে ব্যাট করতে ডাকেন, আফগানিস্তানের শুরুটা বেশ ভালো হয়েছিল গুড়বাজ এবং ইব্রাহিমের হাত ধরে কিন্তু পরবর্তীকালে ভারতীয় বোলাররা ফিরে আসে যার মধ্যে অন্যতম শিবম দুবে নিজেও।

মুকেশ কুমার থেকে শুরু করে অক্ষর প্যাটেল, আর্ষদ্বীপ সিং সবাই ভালো বোলিং করেছেন। কিন্তু যাকে একজন পার্টটাইম বোলার হিসেবে ধরা হয় সেই শিবম দুবে মাত্র ৯ রান দিয়েছেন দু ওভার বল করে এবং একটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট তুলে নিয়েছেন। আর তার এই বোলিংয়ের ভীষণভাবে ইমপ্রেস হয়েছেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার সুরেশ রায়না এবং বড় এবং ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করে দিয়েছেন তিনি।

```

সামনেই রয়েছে আইপিএল এবং সেই আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংস দলে রয়েছেন শিবম দুবে, তবে আইপিএলের সব ম্যাচে তাকে বল করতে দেখা যায় না তার কারণ তিনি যেহেতু একজন পার্ট টাইম বোলার তাই তাকে মাঝে মাঝেই বল করতে দেওয়া হয়। আর সুরেশ রায়না বলেন যে “আজকে যে ধরনের বোলিং তিনি করেছেন সেটা যদি মহেন্দ্র সিং ধোনির দেখেন তাহলে অবশ্যই চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে আইপিএলে প্রত্যেক ম্যাচের মিনিমাম ৩ ওভার বল করার দায়িত্ব তিনি পেয়ে যাবেন।” শুধু তাই নয় এই মন্তব্যের আবার উত্তর দিয়েছেন শিবম দুবে।

ভারতের এই যুবক ক্রিকেটার শিবম ডুবে জানিয়েছেন ‘আমি আশা করছি যে মহেন্দ্র সিং ধোনি যাতে সুরেশ রায়নার কথা শোনেন এবং আমাকে তিন ওভার বল দেয়, তাহলে ভীষণ খুশি হব’। বল হাতে দুই ওভারে নয় রান দিয়ে এক উইকেট নেওয়া ছাড়াও ব্যাট হাতেও রান করেছেন দুবে। মাত্র ৪০ বলে ৬০ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেছেন এই যুব তারকা।

```

পাঁচটি বাউন্ডারি এবং দুটি ছক্কা দিয়ে তিনি তার ইনিংসটি সাজিয়েছিলেন। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিনি ভারতীয় দলের অংশ ছিলেন কিন্তু তাকে কোন ম্যাচের সুযোগ দেওয়া হয়নি তার পাশাপাশি দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে তাকে নিয়েই যাওয়া হয়নি কিন্তু এখানে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে দেখা জায়গা দেওয়া হয়েছে দলের তার পাশাপাশি পরবর্তী ম্যাচগুলোতেও তিনি খেলবেন এই বিষয়টা পরিষ্কার এই দিক দিয়ে দেখতে গেলে ভালো পারফরমেন্স করেছেন দুবে।

আরো একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হল এই ম্যাচে সঞ্জু স্যামসান ভারতীয় দলে থাকলেও প্লেয়িং ইলেভেনে তার জায়গা হয়নি। অর্থাৎ ভারতীয় দল স্পষ্ট করে দিল যে সঞ্জু স্যামসানকে নিয়ে তারা বিন্দুমাত্র সিরিয়াস নয়।