বড় আপডেট:এই দলের এখনো কত প্লেয়ার যাকে নিয়ে এখন সর্বদা হচ্ছে চর্চা, সেই রিংকু সিং

আলিগড়ের ছেলে রিঙ্কু এখন আন্তর্জাতিক। ২০২৩ আইপিএল মাতানো রিঙ্কু সিং (Rinku Singh) জাতীয় দলের জার্সিতে ব্যাট চালাচ্ছেন। আয়ার্ল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি ২০ সিরিজে অভিষেক হয়েছে রিঙ্কুর। বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম টি ২০তে ব্যাট করার সুযোগ পাননি। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নেমেই কামাল দেখালেন। তাঁর ২১ বলে ৩৮ রানের ক্যামিও ইনিংস দলের জয়ের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে।

বড় শট খেলতে তিনি অভ্যস্ত। আইপিএলে তার প্রমাণ মিলেছে। তাই রিঙ্কুকে নিয়ে আলাদা প্রত্যাশা ছিল। কেরিয়ারে প্রথম বার আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামা রিঙ্কুর ব্যাটে এল তিনটি ওভার বাউন্ডারি এবং দুটি বাউন্ডারি। রিংকুর অনবদ্য ইনিংসের জন্য অবাক হয়ে বড় মন্তব্য করলেন ঋতুরাজ গাইকোয়াড।

```

তাঁর মধ্যে ফিনিশার হয়ে ওঠার রসদ রয়েছে সেই প্রমাণ দিলেন আরও একবার। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও গিয়েছে তাঁর ঝুলিতে। আয়ার্ল্যান্ডের (Ind vs Ire) বিরুদ্ধে রিঙ্কুর পারফরম্যান্সে মুগ্ধ ঋতুরাজ গায়কোয়াড় (Ruturaj Gaikwad)। যাঁর নেতৃত্বে আগামী মাসে এশিয়ান গেমসে খেলবে ভারত। কী বললেন ঋতু?সতীর্থকে নিয়ে ঋতুরাজ বলেছেন, “এ বছরের আইপিএল থেকে রিঙ্কু সবার ফেভারিট হয়ে উঠেছে। আইপিএলে ওর ব্যাটিংয়ে দায়িত্বের ছাপ ছিল। ও কিন্তু প্রথম বল থেকে আক্রমণে যায়নি। নিজেকে সময় দিয়েছে। পরিস্থিতি যাই থাকুক ও সবসময় সেটার মূল্যায়ন করে। এরপর আক্রমণাত্মক মোডে চলে যায়।”

তিনি আরও বলেন, “সুতরাং, আমি মনে করি আপকামিং ক্রিকেটার বা যারা ফিনিশার হতে চান তাঁদের জন্য এটা শিক্ষণীয়। কিছুটা সময় নেওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ। তারপর সেটাকে কভার করতে হবে। এ বছর রিঙ্কু এই দক্ষতাটা ভালোভাবেই শিখে নিয়েছে। ও জানে কখন ট্রিগারে চাপ দিতে হবে। এই ইনিংস ওর কাছে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি ওর অভিষেক সিরিজ। এই ইনিংস ভবিষ্যতে তাকে সাহায্য করবে।”

```

ঋতুরাজ নিয়ে এদিন ৪৩ বলে ৫৮ রানের ইনিংস খেলেন। তাঁর ইনিংস ভারতীয় দলকে লক্ষ্যে পৌঁছতে সাহায্য করে। ম্যাচের পর ঋতুরাজ বলেন, তিনি চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির কাছ থেকে একটি বা দুটি কৌশল শিখে রেখেছেন। প্রত্যাশা বা চাপ সামলানোর এই কৌশলকে কাজে লাগিয়ে সফল তিনি। জানিয়েথে ঋতুরাজ।