অজিদের দুরমুশ করে বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবথেকে বড়ো রেকর্ড গড়লো বিরাট কোহলি ও কে এল রাহুল জুটি !

দিনের শুরুটা ছিল ভারতের আর শেষটাও হল ভারতের। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচটা জয় দিয়ে শুরু করল ভারত। অস্ট্রেলিয়াকে ৬ উইকেটে পরাস্ত করল। বিরাট কোহলি ও কেএল রাহুল জুটি দলকে টেনে তুলল এবং শেষটা করল কেএল রাহুল ও হার্দিক পান্ডিয়া জুটি। এরসঙ্গে বিশ্বকাপের প্রথম কঠিন ম্যাচে জিতে মানসিক দিক থেকে এগিয়ে থাকল দল। মাত্র ৪১.২ ওভারেই জয়ের জন্য় প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় ভারত। শেষ বলে ছয় মারেন কেএল রাহুল।

বোলিংয়ের শুরুটা যতটা ভালো হয়েছিল ব্যাটিংয়ের শুরুটা ততটা ভালো হয়নি ভারতের জন্য। নতুন বলে অস্ট্রেলিয়ার পেসাররা নিজেদের আসল রূপ দেখাতে থাকেন। নতুন বলে অস্ট্রেলিয়া বরাবরই ভয়ঙ্কর। সেটার প্রমাণ তারা দিলেন আর তুলে নেন ভারতের গুরুত্বপূর্ণ তিনটে উইকেট। দুই ওপেনার এদিন ব্যর্থ হলেন। রোহিত শর্মা, ঈশান কিষান শূন্য রান করলেন। চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা শ্রেয়স আইয়ার করলেন শূন্য রান।এরপর দলের হাল ধরেন বিরাট কোহলি ও কেএল রাহুল। চোট সারিয়ে ওঠা কেএল রাহুল যে তাঁর খারাপ সময়টাকে পিছনে ফেলেছেন সেটা আবারও দেখালেন।

```

আর বিরাট কোহলিকে নিয়ে আলাদা করে কিছু বলার দরকার নেই। দল যখনই কঠিন সময়ে পড়েছে বিরাট কোহলি সামলেছেন, এই ম্য়াচেও তার ব্যতিক্রম হল না। তবে ইনিংসের শুরুর দিকে একবার তিনি আউট হওয়ার হাত থেকে বেঁচে যান। মিচেল মার্শ তাঁর ক্যাচ মিস করেন। সেই ক্যাচ মিসের মধ্যে দিয়েই ম্যাচ মিস করল অস্ট্রেলিয়া। তিনি আউট হলেও দলকে জয়ের ভিতের উপর দাঁড় করিয়ে যান।বিরাট কোহলি ও কেএল রাহুল দলের হাল যখন ধরেন তখন দলের রান ছিল মাত্র ২। আর হারিয়েছিল তিনটে উইকেট। সেখান থেকে তাঁরা দলকে টানলেন।

প্রথমে ৫০ রানের পার্টনারশিপ আর তারপর সেটা গেল ১০০ রানে, আর শেষ হল ১৬৫ রানে। ভালো বলের জন্য অপেক্ষা করলেন, স্ট্রাইক রোটেট করলেন, আবার বড় শট খেললেন। কপিবুক ক্রিকেট বলতে যেটা বোঝায় সেটাই করলেন তাঁরা। দল গাড্ডায় পড়লে যেভাবে টেনে তুলতে হয় সেভাবেই টেনে তুললেন। কম রানের টার্গেট হওয়ায় সেটার ফলও মিলল হাতেনাতে। ধৈর্য ধরে খেলতে পারল। আর বল পুরনো হতেই অস্ট্রেলিয়ার ঝাঁঝ শেষ হল। এরপর নতুন বল নেওয়া হলে আউট হন বিরাট কোহলি।

```

জস হ্যাজেলউডের বলে মারনাস লাবুশানের হাতে ক্যাচ তোলেন বিরাট। ১১৬ বলে ৮৫ রান করেন তিনি। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া কেএল রাহুলের সঙ্গে পার্টনারশিপ করে দলকে জেতান। ম্যাচের শেষে কেএল রাহুল ৯৭ রানে ও হার্দিক পান্ডিয়া ১১ রানে অপরাজিত থাকেন।অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বল হাতে তিনটে উইকেট নেন জস হ্যাজেলউড ও একটি উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক।

সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া কে পরাজিত করে প্রথম ম্যাচেই জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করলো ভারতীয় দল।