CSK-এর জয়ের রাতে চুপিসারে অনবদ্য ইনিংস দিয়ে বিশ্ব রেকর্ড ঋদ্ধিমান সাহার!

আইপিএল ফাইনাল মানেই ঋদ্ধিমান সাহার ধামাকা। বড় মঞ্চে বারবার জ্বলে ওঠেন ঋদ্ধি। সোমবার ২০২৩ আইপিএল ফাইনালে ফের জ্বলে উঠলেন ঋদ্ধি। দুরন্ত হাফসেঞ্চুরি করে ভরসা জোগালেন দলকে। সেই সঙ্গে গড়লেন একাধিক নজির।

বুড়ো প্লেয়ার হিসেবে আইপিএল ফাইনালে হাফসেঞ্চুরি করার নজির করলেন বাঙালি উইকেটকিপার ব্যাটার। ৩৮ বছর ২১৭ দিন বয়সে ঋদ্ধি এই নজির গড়লেন। এ দিন ৩৯ বলে ৫৪ রানের ঝকঝকে একটি ইনিংস খেলেন ঋদ্ধি। তাঁর ইনিংসে রয়েছে পাঁচটি চার, একটি ছয়। সেই সঙ্গে সবচেয়ে বুড়ো প্লেয়ার হিসেবে আইপিএল ফাইনালে হাফসেঞ্চুরি করার নজির করলেন ঋদ্ধি। তাঁর মতো এত বেশি বয়সের কোনও প্লেয়ার আইপিএল ফাইনালে শতরান তো দূরের কথা, হাফসেঞ্চুরিও করতে পারেননি।

```

এই রেকর্ড এত দিন ছিল শেন ওয়াটসনের। তিনি ২০১৯ সালে ৩৭ বছর ৩২৯ দিন বয়সে আইপিএল ফাইনালে হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন। সেই রেকর্ডই এ দিন ভাঙলেন ঋদ্ধি। ২০২১ সালে আবার ফ্যাফ ডু’প্লেসি ৩৭ বছর ৯৪ দিন বয়সে আইপিএল ফাইনালে হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন। ২০১২ সালে মাইক হাসি ৩৭ বছর বয়সে এই কীর্তি অর্জন করেছিলেন। শেন ওয়াটসন আবার ২০১৮ সালেও ৩৬ বছর ৩৪৪ দিন বয়সে আইপিএল ফাইনালে সেঞ্চুরি করেছিলেন।

ঋদ্ধিমান সাহা প্রথম প্লেয়ার হিসেবে ২টি আইপিএল ফাইনালে ৫০-এর বেশি স্কোর করার নজির গড়লেন। এ দিনের ৫৪ রান করার পাশাপাশি ২০১৪ আইপিএল ফাইনালে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের (বর্তমানে পঞ্জাব কিংস) হয়ে অপরাজিত ১১৫ রানের স্কোর করেছিলেন। এখানেই শেষ নয়। আইপিএল ফাইনালে ঋদ্ধির পরিসংখ্যান বেশ চমকপ্রদ। তাঁর গড় ৮৭। আর স্ট্রাইকরেট ১৭২।

```

ঋদ্ধিমান সাহা বাংলা ছেড়়ে চলে গিয়েছেন ত্রিপুরায়। ত্রিপুরা দলের অধিনায়ক কাম মেন্টরের ভূমিকা পালন করছেন। সিএবির কর্তারা ঋদ্ধিমানের দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। ভারতের হেড কোচ রাহুল দ্রাবিড় তাঁকে টেস্ট দল থেকে ছেঁটে ফেলেছিলেন। বয়স হয়েছে বলে। জাতীয় দলে তিনি ব্রাত্য। তবে আইপিএলের ফাইনালের বড় মঞ্চে যেন সব অপমান, সব বঞ্চনারই যেন জবাব দিয়ে চলেছে। ঋদ্ধিমান দেখিয়ে দিলেন বয়স নেহাৎ-ই সংখ্যা। তিনি এখনও বড় বিগ ম্য়াচের প্লেয়ার।