টেস্ট ম্যাচের প্রথম দিনেই ৫০০ রান,রেকর্ড ইংল্যান্ডের, পাকিস্তানের ১৫০ কিমির বোলাররা দিশেহারা!

ম্যাচের আগের দিনও ইংল্যান্ড শিবির নিশ্চিত ছিল না তারা এগারোজন সুস্থ ক্রিকেটারকে মাঠে নামাতে পারবে কিনা। ব্রিটিশ স্কোয়াডের বেশিরভাগ ক্রিকেটার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় ম্যাচর দিন স্থির করা হয় নির্ধারিত সূচি মেনে সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু করা হবে কিনা। নাহলে রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট একদিন পিছিয়ে দেওয়ার বিকল্পও খোলা রেখেছিল পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড, দু’দেশের ক্রিকেট বোর্ড।যদিও শেষমেশ পূর্বনির্ধারিত সূচি মেনে বৃহস্পতিবারই শুরু হয় ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ এবং সেই সিরিজের শুরুতেই ইতিহাস গড়ে ইংল্যান্ড দল।

প্রথম দিনের খেলার গতিপ্রকৃতি দেখে ক্রিকেটপ্রেমীরা কার্যত একটা বিষয়ে নিশ্চিত যে, পিসিবির ব্যাটিং পিচের পরিকল্পনা মতোই অতিথি আপ্যায়নে কোনও ত্রুটি রাখেনি পাক বোলাররা।রাওয়ালপিন্ডির বাইশগজ যে ব্যাটসম্যানদের কাছে (বোলারদের জন্য নয়) ফর্মুলা ওয়ানের ট্র্যাক হিসেবে বিবেচিত হবে, সেটা বুঝতে অসুবিধা হয়নি ইংল্যান্ড দলনায়ক বেন স্টোকসের। তাই টস জিতে শুরুতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিতে দু’বার ভাবেননি তিনি। সিদ্ধান্ত যে কতটা ঠিক, সেটা বোঝা যায় প্রথম দিনের শেষেই।

ইংল্যান্ড প্রথম দল হিসেবে টেস্টের প্রথম দিনেই ৫০০ রানের গণ্ডি টপকে যায়। এই প্রথমবার টেস্টের প্রথম দিনে কোনও দলের চারজন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করেন। টেস্টের শুরুতে সব থেকে কম ওভারে (১৩.৪) দলগত ১০০ রান করার রেকর্ড গড়ে ইংল্যান্ড। প্রথম সেশনে সব থেকে বেশি ১৭৪ রান সংগ্রহ করার রেকর্ডও গড়ে ফেলে তারা। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, সারা দিনের ৯০ ওভারের কোটাও পূর্ণ হয়নি। খেলা শেষ হয় অনেক আগেই। তাতেই ৫০০ রানের গণ্ডি টপকেছে ইংল্যান্ড।

তারা প্রথম দিনের শেষে ৭৫ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ৫০৬ রান তুলেছে।জ্যাক ক্রাউলি ৮৬ বলে ব্যক্তিগত সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। তিনি শেষমেশ ২১টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১১১ বলে ১২২ রান করে আউট হন। বেন ডাকেট ১০৫ বলে শতরানের গণ্ডি টপকান। তিনি ১৫টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১১০ বলে ১০৭ রান করে মাঠ ছাড়েন। ওলি পোপ ৯০ বলে সেঞ্চুরি করেন। তিনি ১৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০৪ বলে ১০৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন। হ্যারি ব্রুক ৮০ বলে তিন অঙ্কের রানে পৌঁছে যান।

তিনি ১৪টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৮১ বলে ১০১ রান করে অপরাজিত থাকেন।তাঁর সঙ্গে প্রথম দিনে নট-আউট থাকেন ক্যাপ্টেন বেন স্টোকস। তিনি ৬টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ১৫ বলে ৩৪ রান করেছেন। একমাত্র জো রুট সস্তায় সাজঘরে ফিরেছেন। তিনি ৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩১ বলে ২৩ রান করেন। পাকিস্তানের হয়ে প্রথম দিনে ২টি উইকেট নেন জাহিদ মাহমুদ। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন মহম্মদ আলি ও হ্যারিস রউফ।