তীব্র বৃষ্টি শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ম্যাচেও,খেলা না হলে ভারতের বিরুদ্ধে ফাইনাল খেলবে এই দল !

২০ বছরের তরুণ অলরাউন্ডার দুনিথ ওয়ালালাগে মঙ্গলবার ভারতের বিরুদ্ধে এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে একেবারে আগুনে পারফরম্যান্স করেছেন। প্রথমে বল হাতে, তার পর ব্যাট হাতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওয়ালালাগের যাবতীয় লড়াই ব্যর্থ করে ভারত শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে নিজেদের এক ম্যাচ বাকি থাকতেই এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেছে। মঙ্গলবার ভারতের ব্যাটিং বিপর্যয় হলেও, শ্রীলঙ্কাকে তারা ৪১ রানে হারিয়ে দিয়েছে। পাকিস্তানের পর শ্রীলঙ্কাকে হারানোয় এখন সুপার ফোরের পয়েন্ট টেবলে ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট ভারতের। শ্রীলঙ্কা (২ ম্যাচে ২ পয়েন্ট) এবং পাকিস্তানের (২ ম্যাচে ২ পয়েন্ট) পয়েন্ট সমান।

এবার প্রশ্ন হল, এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে কোন দল? পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কা বৃহস্পতিবার মুখোমুখি হবে। যে দল জিতবে, তাদের ৪ পয়েন্ট হবে। অর্থাৎ জয়ী দল ফাইনালে উঠবে। এর অর্থ হল বৃহস্পতিবার কলম্বোতে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মধ্যে একটি ভার্চুয়াল সেমিফাইনাল হতে চলেছে। এদিকে সুপার ফোরে বাংলাদেশ তাদের দু’টি ম্যাচই হেরে বসে রয়েছে। কোনও পয়েন্ট তারা পায়নি। তারা ইতিমধ্যে এশিয়া কাপের লড়াই থেকে ছিটকে গিয়েছে। ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের ম্যাচ এখনও বাকি। তবে শুক্রবারের সেই ম্যাচটি এখন নিয়মরক্ষার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

```

১৭ সেপ্টেম্বর রবিবার এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে খেলবে কে? এটাই এখন সবচেয়ে বড় চর্চার বিষয়। তবে এর সমীকরণ কিন্তু খুব একটা কঠিন নয়। শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান ম্যাচের বিজয়ী দল ফাইনালে উঠবে। তবে যদি বৃষ্টি বা অন্য কোনও কারণে ম্যাচ বেস্তে যায়, তা হলে অঙ্কটা কী দাঁড়াবে?এই ম্যাচের জন্য কোনও সংরক্ষিত দিন নেই। বৃহস্পতিবার কলম্বোতে আবার বৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, বজ্রবৃষ্টি সহ বৃষ্টিপাতের ৭৩% সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টির কারণে কোনও ফলাফল না হলে কী হবে তখন? সেক্ষেত্রে দুই দলের মধ্যে পয়েন্ট ভাগাভাগি হবে। এবং সমান পয়েন্টই থাকবে পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার। তখন দেখা হবে নেট রানরেট।

আর সেটা হলে পাকিস্তানের কপাল পুড়বে। কারণ বাবর আজমদের (-১.৮৯২) চেয়ে ভালো নেট রান রেট (-০.২০০) রয়েছে শ্রীলঙ্কার। তাই তারা ফাইনালে উঠে যাবে।আসলে ভারতের কাছে ২২৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হারের পর পাকিস্তানের নেট রানরেট কমে গিয়েছে। যেটা বড় ধাক্কা হয়েছে বাবরদের জন্য। পাকিস্তান তাই চাইবে, যে কোনও পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার যেন পুরো খেলাটাই হয়। খেলা না হলে লাভবান হবে শ্রীলঙ্কা।এদিকে পাকিস্তানের মতো গোটা ক্রিকেট বিশ্বও চাইছে, এশিয়া কাপের ফাইনালে এবার ভারত-পাকিস্তানের দ্বৈরথ হোক।

```

এবারের এশিয়া কাপে এই দুই দলের প্রথম লড়াইয়ে ফল হয়নি। তবে সুপার ফোর পর্বে দু’দিন ধরে লড়াই চলেছে। শেষ পর্যন্ট ভারত রেকর্ড জয় পেয়েছে। পাকিস্তান ভক্তরা চাইবে, এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে বাবর আজমরা সেই বদলাটা নিক!

তবে ভারতীয় দল যে ধরনের ফর্মে রয়েছে এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের সামনে যে দলই থাকুক না কেন তাদের পক্ষে জেতা যে কতটা অসম্ভব হতে চলেছে সেটা ভারতীয় দল বিগত দুই ম্যাচে প্রমাণ করে দিয়েছে।