WWWW শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং লাইন আপকে একা হাতে ধ্বংস করে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন কুলদীপ যাদব !

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অনবদ্য বোলিং করেছিলেন টিম ইন্ডিয়ার অন্যতম স্পিনার কুলদীপ যাদব। চাহ্যালের মতো স্পিনারকে বাদ দিয়েছে টিম ইন্ডিয়া, এত বড় সিদ্ধান্তর পরে টিম ইন্ডিয়াকে নিয়ে অনেক সমালোচনা হয় তবে কুলদীপ যাদব যেভাবে বোলিং করেছেন বিগত ম্যাচগুলিতে তা রীতিমতো চমকে দেওয়ার মতো। ৫ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের কোমর ভেঙেছিলেন এবার লাগাতার দুর্দান্ত বোলিংয়ে চারটি উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ইতিহাস গড়লেন কুলদীপ যাদব। অবিশ্বাস্যভাবে মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ৯টি উইকেটও নিলেন তিনি।

২০১৯ সালের বিশ্বকাপে কুলদীপ যাদব নিজের চরমে ছিলেন এবং বিশ্বকাপে দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন, তার অনবদ্য বোলিং ভারতীয় দলকে বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছাতে সাহায্য করে, কিন্তু তারপরে একটা ডাউনফল দেখা যায় কুলদীপ যাদবের, তার উইকেট পাওয়া কমে যায় এবং একের পর এক ম্যাচ তিনি বিনা উইকেটে চালিয়ে যান, তার বলের গতি বোলিং একশন সবকিছু নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, ইন্ডিয়া থেকে বাদ পড়ার পর তিনি আবার দুর্দান্ত কাম ব্যাক করেন আইপিএলের হাত দিয়ে এবং নিজের বোলিংয়ে বেশ কিছু পরিবর্তন করে তিনি দুরন্ত ফর্মে আবার টিম ইন্ডিয়াতে প্রত্যাবর্তন করেছেন।

```

যে মুহূর্তে দাঁড়িয়ে শ্রীলঙ্কা প্রায় ম্যাচ ভারতের থেকে বের করে নিয়ে চলে যেত সেই সময় উইকেট গুলি নিয়ে তিনি ভারতীয় দলকে জয়ের কাছে এনে দেন, এমনকি যে মুহূর্তে দুটি উইকেটের দরকার ছিল সেখানে গিয়ে লাগাতার দুটি উইকেট নিয়ে তিনি ম্যাচ পুরো শেষই করে দিলেন। এই ম্যাচে টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত রোহিত শর্মা নিয়েছিলেন এবং সেই সিদ্ধান্তকে তিনি সঠিক প্রমাণিত করেন ওপেনিং এ দুর্দান্ত ব্যাটিং করে তবে রোহিত শর্মা ছাড়া আজকে সেভাবে কেউ দাঁড়াতে পারেনি। ব্যর্থ হয়েছেন বিরাট কোহলিও। তবে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের সময় প্রায় 15 ওভারের পরে হঠাৎ করে এমন ভাবে বল ঘুরতে আরম্ভ করে যা খেলা রীতিমতো অসম্ভব ছিল, প্রথমদিকে যদি রোহিত শর্মা ওই রান না করতেন তাহলে ভারতের জেতা রীতিমতো অসম্ভব ছিল এটা বলা যায়।

ভারতীয় দলের তরফ থেকে শ্রীলংকাকে প্রথম ঝটকা দেন সেই বুমরহ, তিনি কেন ভারতীয় দলের এক্স ফ্যাক্টর সেটা তিনি আরো একবার প্রমাণিত করেছেন, দুর্দান্ত বোলিং করেছেন মোঃ সিরাজ। তবে শ্রীলঙ্কার দল যে মুহূর্তে ভারতীয় দলের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই শুরু করেছিল সেই মুহূর্তে এই ম্যাচকে রীতিমতো ঘুরিয়ে ফেলেন জাদেজা ও কুলদীপ এই দুই স্পিনার, যদি অক্ষর পেটেল আজকে কোন উইকেট পাননি তবে তিনিও খুব ভালো বোলিং করেছেন।

```

সব মিলিয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালে পৌঁছে গেছে টিম ইন্ডিয়া, জানিয়ে রাখবো যে ২০১৮ সালে ভারতীয় দল এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেছিল এবং সেবার জয়লাভ করেছিল বাংলাদেশকে পরাজিত করে রোহিত শর্মার নেতৃত্বে। কারণ সেই টুর্নামেন্টে বিরাট কোহলিকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল।

বিশ্বকাপের আগে ভারতীয় দল যদি এশিয়া কাপে জয়লাভ করতে পারে তাহলে সেটা টিম ইন্ডিয়ার কনফিডেন্স এর জন্য খুবই ভালো একটা ব্যাপার হবে।