বিশ্বকাপে নেই পাকিস্তানের অন্যতম সেরা পেসার, ১৫ জনের অবিশ্বাস্য দল ঘোষণা করলো পাকিস্তান!

২০২৩ সালে ঘটে যাওয়া বিশ্বকাপ পাকিস্তান দলের জন্য একটা দুঃস্বপ্নের থেকে কম কিছু নয় কারণ ভারতীয় দলের কাছে লজ্জা জনক ভাবে তারা পরাজিত হয়েছে এবং তার পাশাপাশি দলের একাধিক প্লেয়ার জোট সমস্যায় জর্জরিত হয়েছে এবং অন্যদিকে দলের অধিনায়ক এবং দলের মেন বোলার এর মধ্যেও হয়েছে চরম ঝামেলা যা সারা দুনিয়ার সামনে পর্যন্ত এসে গেছে। পাশাপাশি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করার ক্ষেত্রেও অনেক রকম সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে পাকিস্তান কারণ চোট সমস্যায় জর্জরিত একাধিক প্লেয়ার।

এশিয়া কাপের চোট বড় ধাক্কা দিল পাকিস্তানকে। বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন না নাসিম শাহ। তাঁকে বাদ দিয়েই ১৫ জনের দল ঘোষণা করল পাকিস্তান। দলে ফিরলেন হাসান আলি। চার পেসার নিয়ে ভারতে আসছে পাকিস্তান। দল ঘোষণা করলেন প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক।বাবর আজ়মের নেতৃত্বেই ভারতে বিশ্বকাপ খেলতে আসছে পাকিস্তান। সহ-অধিনায়ক শাদাব খান। কিন্তু তাঁদের সব থেকে বড় চিন্তার কারণ হয়ে রইলেন তরুণ পেসার নাসিম। এশিয়া কাপে ভারতের বিরুদ্ধে সুপার ফোরে খেলার সময় চোট পেয়েছিলেন তিনি। সেই চোট সারতে সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন ইনজামাম।

```

তিনি বলেন, “বিশ্বকাপে নাসিমের পক্ষে তো খেলা সম্ভব নয়। তার পরেও সময় লাগবে। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন যে, ওর ম্যাচ ফিট হতে সময় লাগবে। তাই বিশ্বকাপের মাঝে ওকে দলে ফেরানোর কোনও সম্ভাবনা নেই। সেটার নিয়মও নেই।”বাবরের নেতৃত্বে পাকিস্তানের যে দলে ভারতে খেলতে আসবে তাতে ব্যাটিং বিভাগ সামলাবেন ফখর জমন, ইমাম উল হক, আবদুল্লা শফিক, আঘা সলমন, ইফতিখর আহমেদের মতো ব্যাটারেরা। উইকেটরক্ষক হিসাবে রয়েছেন মহম্মদ রিজ়ওয়ান। তিনি ছাড়া দলে আর কোনও উইকেটরক্ষক নেই।স্পিন বিভাগ সামলাবেন শাদাব, মহম্মদ নওয়াজ এবং উসামা মির। পেসার মধ্যে দলে রয়েছেন হ্যারিস রউফ, হাসান আলি, শাহিন আফ্রিদি এবং মহম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র।

ইনজামাম বলেন, “ভারতের মাটিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে পেসারদের। মাঝের ওভারে উইকেট নিতে হবে তাঁদের। সেই কারণেই হাসানকে দলে নেওয়া হয়েছে। এমন পেসারদের দলে রাখা হয়েছে যারা উইকেট নিতে পারে।” হাসান শেষ এক দিনের ম্যাচ খেলেছিলেন এক বছর আগে। তাঁকে এত দিন পর দলে ফেরানো নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। রিজার্ভ দলে রাখা হয়েছে মহম্মদ হ্যারিস, আবরার আহমেদ এবং জমন খানকে।

```

পাকিস্তান দল: বাবর আজ়ম (অধিনায়ক), শাদাব খান (সহ-অধিনায়ক), ফখর জমন, ইমাম উল হক, আবদুল্লা শফিক, আঘা সলমন, ইফতিখর আহমেদ, মহম্মদ রিজ়ওয়ান (উইকেটরক্ষক), সাউদ শাকিল, মহম্মদ নওয়াজ, উসামা মির, হ্যারিস রউফ, হাসান আলি, শাহিন আফ্রিদি এবং মহম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র।রিজার্ভ দল: মহম্মদ হ্যারিস, আবরার আহমেদ এবং জমন খানকে।

সব মিলিয়ে এই পাকিস্তান দল কতটা ভারতীয় মাটিতে লড়াই করতে পারবে এখন সেটাই ব্যাপার।