নেদারল্যান্ড সাউথ আফ্রিকাকে হারাতেই চরম লাভ হলো ৩ দলের, সবথেকে লাভবান ভারত,দেখুন সমীকরণ

চরম জমে উঠেছে এবারের বিশ্বকাপ। এবারের বিশ্বকাপে আর কাউকে ছোট দল হিসেবে ধরা যাবে না। কারণ ইতিমধ্যে ঘটে গেছে দুটি অঘটন। মঙ্গলবার বিশ্বকাপে দ্বিতীয় অঘটন ঘটিয়েছে নেদারল্যান্ডস। হারিয়ে দিয়েছে প্রতিযোগিতায় দুর্দান্ত ফর্মে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকাকে। এর আগে ইংল্যান্ড কে পরাজিত করেছিল আফগানিস্তান যা রীতিমতো একটা প্রথম ফের বদল এবারের বিশ্বকাপে। আর এদিকে নেদারল্যান্ডসের জয়ের ফলে হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে বেশ কয়েকটি দল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডের অনবদ্য জয় বেশ খানিকটা সুবিধা হয়ে গেল এই কয়েকটি দলের।

সব থেকে বেশি সুবিধা যে দলগুলির হয়েছে তারা হলো অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এবং পাকিস্তান। এই তিনটি দলের সুবিধা হওয়ার থেকে সবথেকে বড় ব্যাপার হল অসুবিধা থেকে তারা মুক্তি পেয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ইংল্যান্ড পাকিস্তান এই তিনটি দলই এখনো পর্যন্ত ম্যাচ হেরেছে, বাকি যে সমস্ত দল বিশ্বকাপের লড়াইয়ে রয়েছে যেমন নিউজিল্যান্ড এবং ভারত তারাও যদি একটা ম্যাচ হারতো তাহলে সুবিধা হতো অস্ট্রেলিয়া ইংল্যান্ড এবং পাকিস্তানের কিন্তু তারা একের পর এক ম্যাচ জিতেই যাচ্ছে। নেদারল্যান্ডের জয় ভারতের সুবিধা এটাই হল যে, দক্ষিণ আফ্রিকা একটা ম্যাচ হেরেছে অর্থাৎ ভারতের থেকে কম পয়েন্ট রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার এখন ভারত চাইবে যাতে নিউজিল্যান্ড আফগানিস্তানের কাছে ম্যাচটি হেরে যায়।

```

দক্ষিণ আফ্রিকার পরাজয় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবে পাকিস্তান ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া। প্রতিযোগিতার সেমিফাইনালে তাদের ওঠার সম্ভাবনা বেড়ে গিয়েছে।দক্ষিণ আফ্রিকার হারের ফলে চলতি বিশ্বকাপে এখনও পর্যন্ত ভারত এবং নিউ জ়িল্যান্ডই একমাত্র দল যারা কোনও ম্যাচে হারেনি। ফলে শেষ চারে ওঠার ব্যাপারেও এই দুই দল বাকিদের থেকে এগিয়ে। আফগানিস্তানের কাছে ইংল্যান্ডের হারের পরে বাকি দলগুলির কাছে শেষ চারে ওঠার লড়াই জমে গিয়েছে।মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকা জিতলে তাদেরও জয়ের হ্যাটট্রিক হত। ফলে ভারত এবং নিউ জ়িল্যান্ডের পাশাপাশি তারাও সেমিফাইনালে ওঠার ব্যাপারে দাবিদার থাকত। কিন্তু…

প্রোটিয়াদের হারে বাকি বড় দলগুলি স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতেই পারে। বিশেষত ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এবং পাকিস্তান, যাদের শুরুটা ভাল হয়নি। অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডে তিনটি ম্যাচের দু’টিতেই হেরেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার হারের ফলে এই দুই দলেরই সেমিফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা নিজেদের হাতে রয়েছে। দু’দলই সেমিফাইনালে উঠতে পারে। একই কথা বলা যায় পাকিস্তানের ক্ষেত্রেও। ভারতের কাছে হারের পরেও তাদের অবস্থার বদল হচ্ছে না খুব একটা।

```

ইংল্যান্ডের এখনও খেলা বাকি পাকিস্তান, ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে। অস্ট্রেলিয়া খেলবে পাকিস্তান, নিউ জ়‌িল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের সঙ্গে। অন্য দিকে, পাকিস্তানের খেলা বাকি অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং নিউ জ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে। ফলে বড় দলগুলির মুখোমুখি সাক্ষাতে অনেক নাটকই দেখা যেতে চলেছে আগামী দিনে।

যদিও ভারত এইসবের খুব একটা তোয়াক্কা করে না কারণ ভারত যে সেমিফাইনালে যাবে সেটা তাদের পারফরম্যান্স দেখেই বোঝা যাচ্ছে।