লাগাতার ১৩ বার,অনবদ্য সিরিজ জিতে পাকিস্তানকে পিছনে ফেলে নতুন ইতিহাস গড়লো টিম ইন্ডিয়া !

ভারতীয় ক্রিকেট দল ১ অগস্ট বাইশ গজে নতুন ইতিহাস তৈরি করল। ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে অনুষ্ঠিত একদিনের সিরিজের শেষ ম্যাচে মঙ্গলবার উইন্ডিজকে ২০০ রানে হারিয়ে দিয়েছে হার্দিক পান্ডিয়ার টিম ইন্ডিয়া। খেলা তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচ জিতে নিজেদের বিশ্ব রেকর্ডকে আরও মজবুত করেছে ভারত। ত্রিনিদাদে ওয়ানডে সিরিজের নির্ণায়ক ম্যাচে জিতে নিজেদের বিশ্ব রেকর্ডকে শক্তিশালী করেছে ভারত।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টানা ১৩তম ওডিআই সিরিজ জিতল টিম ইন্ডিয়া। একটি দেশের বিরুদ্ধে সবচেয়ে টানা দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয়ের নিরিখে এই মুহূর্তে সবচেয়ে সফল দল টিম ইন্ডিয়া। এক্ষেত্রে পাকিস্তান দল এখন অনেকটাই পিছিয়ে গিয়েছে।ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টানা ১৩ বার ওয়ানডে সিরিজে হারাল। ঘরের মাঠে ও অ্যাওয়ে ম্য়াচ মিলিয়ে টানা মোট ১৩ বার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে একদিনের সিরিজে হাাল। এই তালিকায় পাকিস্তান রয়েছে দুই নম্বরে। তারা ১১ টি সিরিজ জয়ের সঙ্গে এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ২০০৭ সাল থেকে চলছে ভারতের বিজয়রথ।

```

একই সঙ্গে ১৯৯৬ সাল থেকে জিম্বাবোয়েকে হারিয়ে চলেছে পাকিস্তান। জিম্বাবোয়েকে একটিও সিরিজ জিততে দেয়নি পাকিস্তান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধেও জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে পাকিস্তান দল। পাকিস্তান ১৯৯৯ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ১০টি দ্বিপাক্ষিক ওডিআই সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করেছে। যেখানে ভারত শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সর্বাধিক টানা সিরিজ জয়ের রেকর্ড করেছে। শ্রীলঙ্কা দল ২০০৭ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ভারতীয় দলের বিরুদ্ধে একটিও সিরিজ জিততে পারেনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে রানের নিরিখে ভারতীয় ক্রিকেট দলের এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম জয়। ভারত এর আগে ২০১৮ সালে মুম্বইয়ের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২২৪ রানে হারিয়েছিল এবং এখন দল এখানে ২০০ রানে জিতেছে। ২০০৭ সালে, ভারত ১৬০ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করেছিল এবং ২০১১ সালে, তারা উইন্ডিজের বিরুদ্ধে ১৫৩ রানে ওডিআই ম্যাচ জিতেছিল।একটি দলের বিপক্ষে সর্বাধিক টানা দ্বিপাক্ষিক ওডিআই সিরিজ জয় :

```
  • ১৩ – ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ (২০০৭-২৩)
  • ১১ – পাকিস্তান বনাম জিম্বাবোয়ে (১৯৯৬-২১)
  • ১০ – পাকিস্তান বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৯৯৯-২২)
  • ১০ – ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা (২০০৭-২২)

এদিকে ম্যাচের ২০তম ওভারে ইয়ানিক কারিয়ার হাতে আউট হওয়ার আগে কিষান ৬৪ বলে ৭৭ রান করে ফেলেছিলেন। শুভমন গিলের সঙ্গে ওপেনিং জুটিতে ১৪৩ রানের ইনিংস খেলে ফেলেছিলেন তিনি। এটি ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজে একটি ওডিআইতে ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি এবং এই সময়ে কিষান তার টানা তৃতীয় ওডিআই হাফ সেঞ্চুরিটি পূর্ণ করেন। এভাবে তিনি ষষ্ঠ ভারতীয় খেলোয়াড় হিসেবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রতিটি ম্যাচে ৫০ বা তার বেশি রান করলেন।