ভারতের দাবি মানলো ICC,আগামী বছর সব খেলা বন্ধ রেখে আড়াই মাস ধরে নতুনভাবে হবে IPL

বিসিসিআইয়ের দাবিই মান্যতা পেল। আগামী বছর সব বড় দলের আন্তর্জাতিক সিরিজ বন্ধ রেখে আড়াই মাস ধরে হবে আইপিএল। বোর্ডের এই প্রস্তাবে রাজি হয়েছে আইসিসি (ICC)। এক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ওয়েবসাইটের এমনটাই দাবি। সূত্রের খবর, শুধু আইপিএল নয়, অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশ লিগ এবং ইংল্যান্ডের ‘দ্য হান্ড্রেড’ টুর্নামেন্টের জন্যও আগামী বছর আলাদা করে সময় দেবে আইসিসি।

ওই ক্রিকেট ওয়েবসাইটের দাবি অনুযায়ী, মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে আড়াই মাসের একটি উইনডো রাখা হয়েছে আইপিএলের (IPL) জন্য। ওই সময় বড় কোনও দলের কোনও সিরিজ থাকবে না। ফলে বিশ্বের সব সেরা তারকা আইপিএলে অংশ নিতে পারবেন। একইভাবে জানুয়ারি মাসে যখন বিগ ব্যাশ চলবে তখনও বিশ্বের সেরা দেশগুলি সাদাবলের কোনও সিরিজ খেলবে না। টেস্ট সিরিজ চলতে পারে।

আবার দ্য হান্ড্রেড চলাকালীন জুলাই মাসে ৩-৪ সপ্তাহে কোনও সাদা বলের টুর্নামেন্ট হবে না। এমনটাই নাকি ঠিক হয়েছে আইসিসির ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রামে (FTP)।দেড় মাসের বদলে পরের আইসিসির এফটিপি উইন্ডো থেকে আইপিএল হবে আড়াই মাসের, বিরাট অঙ্কের মিডিয়া স্বত্ত্ব পাওয়ার পরই ঘোষণা করেছিলেন বিসিসিআই সচিব জয় শাহ (Jay Shah)। বোর্ড সচিব জানান, এবার আইপিএলে সর্বমোট ৭৪-টা ম্যাচ হয়েছে। ভবিষ্যতে সেই সংখ্যাটা আরও বাড়বে।

শেষমেশ সেটা গিয়ে ৯৪-তে দাঁড়াবে। দেড় মাসের আইপিএল নয়, তার পরিবর্তে টুর্নামেন্টের মেয়াদ হতে চলেছে আড়াই মাসের। সেটা হবে আইসিসির পরের ক্রিকেট ক্যালেন্ডার থেকে।” শাহ বলেছিলেন, “সরকারিভাবে পরের আইসিসির এফটিপি ক্যালেন্ডারে আইপিএল আড়াই মাসে থাকবে।” বোর্ড সচিবের ঘোষণার পরই বিসিসিআই (BCCI) আইসিসির সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনা শুরু করে।

পাক ক্রিকেট বোর্ড ভারতের এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করলেও শেষমেষ তা ধোপে টেকেনি। যদিও এভাবে ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টের জন্য আইসিসির উইনডো রাখাটাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য অশনিসংকেত বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ।