ভারতীয় টিম বাপের জমিদারি! ঋষভ এর অহঙ্কার দেখে স্তম্ভিত ক্রিকেট ভক্তরা! রইলো ভিডিও

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে পরাজিত ভারতীয় দল, প্রথম ম্যাচে পরাজয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচ বৃষ্টির জন্য বিঘ্নিত হয় তবে তৃতীয় ম্যাচে ভারতীয় দলের কপাল ভালো ছিল যে বৃষ্টিটা হয়েছে নাহলে এই ম্যাচটিও ভারত খুব সহজে পরাজিত হতো। এরকম পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে দলের বিভিন্ন জায়গা নিয়ে কাঁটা ছেঁড়া শুরু হয়েছে আর তার মধ্যে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ঋষভ পন্থ বন্ধ এর জায়গা। তবে ঋষভ এর অহংকার দেখে স্তম্ভিত হচ্ছেন ক্রিকেট ভক্তরা।

একটা লম্বা সময় ধরে ভারতীয় দলের হয়ে একের পর এক ম্যাচ খেলেই চলেছেন রিসব, কিন্তু performance এর কোন বালাই নেই, একের পর এক ম্যাচ তিনি ফ্লপ করেছেন, কোন একটি ম্যাচে রান করার পর রীতিমতো দশটি ম্যাচ তিমি ফ্লপ করেন অথচ তার সত্বেও তিনি দলে রয়েছেন, কার আশীর্বাদে তিনি দলে রয়েছেন এটা জানতে চাইছে ক্রিকেট ভক্তরা। পাশাপাশি, দুরন্ত ফর্মে থাকা সঞ্জু স্যামসান জায়গা পাচ্ছেন না আর ঋষভ এর জন্য, অথচ নিজের পারফরমেন্স নিয়ে বিন্দুমাত্র আক্ষেপ নেই ঋষভ এর, বরং তিনি বুক ঠুকে যা মন্তব্য করলেন তাতে মনে হল ভারতীয় দলটা যেন তার বাবার জমিদারি।

ভারতের খুবই সনামধন্য একজন ক্রীড়া সাংবাদিক হর্ষ ভোগলে ঋষভকে প্রশ্ন করেন যে তোমার খেলা দেখে মনে হয় তুমি সাদা বলে দুর্দান্ত অ্যাটাকিং ক্রিকেট খেলতে পারবে, কিন্তু রেকর্ড দেখে মনে হচ্ছে তোমার টেস্ট ক্রিকেটেই পারফরমেন্স বেশি ভালো। এই প্রশ্নের উত্তরে রিসব এমন ভাবে উত্তর দেন যেন এই প্রশ্নগুলো কোন ব্যাপারই নয়, তিনি পারফরম্যান্স কি করলেন না করলেন কারো কিছু এসে যায় না তিনি দলে খেলেই যাবেন এরকম ধরনের তার উত্তর, ঋষভ বলেন, ‘ সাদা বলের ক্রিকেটে আমার রেকর্ড দারুন, বিশেষ করে টি-টোয়েন্টিতে আমি ভালই খেলছি’, যা শুনে বেশ কিছুটা অবাক হয়ে যান প্রশ্নকর্তা কারণ তার হাতে সমস্ত তথ্য রয়েছে যে সাদা বলে T20 হোক বা ওডিআই বর্তমানে ঋষভ এর কোন পারফরমেন্স নেই।

সেখানেই তিনি থেমে থাকেননি, তিনি এটা পর্যন্ত বলেন যে বর্তমানে আমার টেস্ট ক্রিকেটের পারফরম্যান্স সঙ্গে ওয়ানডে অথবা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের পারফরমেন্সের তুলনা করার কোন প্রশ্নই ওঠে না কারণ আমার বয়স মাত্র ২৪ বছর, যখন আমার বয়স ৩০-৩২ হবে তখন আমার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সাথে টেস্ট ক্রিকেটের ক্যারিয়ারের তুলনা করাটা যথাযথ হবে তাছাড়া এই মুহূর্তে এসব নিয়ে তুলনা করার কোন লজিকই নেই। অর্থাৎ তিনি টেস্টে ভালো খেলছেন নাকি ODI-T20 খেলা গুলোতে ভালো খেলছেন সেটার রেকর্ড দেখেই তো ভারতীয় দল সিদ্ধান্ত নেমে যে তাকে টেস্ট খেলাবে নাকি ODI-T20 তে খেলাবে কিন্তু ঋষভ এর বক্তব্য সেই দুইয়ের তুলনা করতে এখনও অন্তত তাকে ৮ বছর সময় দিতে হবে তার বয়স ৩০-৩২ হওয়া পর্যন্ত।নিচের ভিডিওতে দেখুন ঋষভ কতটা casual ভারতীয় দলে থাকা নিয়ে, ঠিক যেন তার বাবার জমিদারি, আমি ভালো খেলি মুখে বলছি মানে আমি ভালো খেলি, তথ্য কি বলছে তাতে যেন কোন যায়ই আসে না। দেখুন ভিডিও:

সব মিলিয়ে ঋষভ পন্থ এর এই ধরনের কথাবার্তা মোটেও ভালোভাবে নিচ্ছেন না ক্রিকেট ভক্তরা। তাকে এই মুহূর্তে ভারতীয় দল থেকে বহিষ্কৃত করার দাবি জানিয়েছেন অসংখ্য ক্রিকেট ভক্তরা কারণ তিনি তার জায়গার সদ্ব্যবহার মোটেও করছেন না তার জন্য অনেক ট্যালেন্টড ক্রিকেটার জায়গা পাচ্ছে না।