সুযোগ পেয়েই ব্যাট দিয়ে ক্ষোভ উগরালেন সঞ্জু স্যামসন! বোলারদের কাঁদিয়ে গড়লেন রেকর্ড!

ভারতীয় ক্রিকেটে এই মুহূর্তে সবথেকে অবহেলিত ক্রিকেটার সঞ্জু শামসন। যখনই তিনি ভারতীয় দলের হয়ে সুযোগ পেয়েছেন তিনি দুরন্ত ইনিংস খেলেছেন। কিন্তু তার সত্ত্বেও তাকে বেঞ্চে বসে থাকতে হচ্ছে ভারতীয় দলে তার জায়গা হচ্ছে না অথচ, ৬৫টি টি-টোয়েন্টি ইনিংস এর মধ্যে রিশব পন্থ প্রায় ৫০ টিতে ফ্লপ তার সত্বেও তিনি একের পর এক ম্যাচ খেলেই চলেছেন। তবে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে সুযোগ পেতে ব্যাট দিয়ে আগুন ধরালেন সঞ্জু।

এদিনের ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে আসে ভারত, ওয়ানডে ম্যাচে ভারতের নতুন ওপেনিং জুটি যেটা ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং দক্ষিণ আফ্রিকাতে দুরন্ত পারফরমেন্স করেছে, সেই শিখর ধাওয়ান এবং শুভমন গিল দুরন্ত অর্ধশতরান করে ভারতকে একটা অসাধারণ স্টার্ট দেন। পাশাপাশি এই ম্যাচে ভারতের নাম্বার তিন শ্রেয়স আইয়ার দুরন্ত ব্যাটিং করেন। ৭৭ বলে ৭২ রান করে আউট হন শিখর ধাওয়ান, পাশাপাশি ৬৫ বলে ৫০ করে আউট হন শুভমন গিল। আর তারপরেই দুরন্ত পার্টনারশিপ শুরু করে শ্রেয়স এবং সঞ্জু।

পাশাপাশি জানিয়ে রাখবো যে সঞ্জুর আগে ব্যাটিং করতে আসে ঋষভ পন্থ, তিনি একদম তার নিজের অভ্যাস ধরে রাখেন এবং উইকেট ছুড়ে দিয়ে ২৩ বলে মাত্র 15 রানে আউট হয়ে চলে আসেন ।। যে জায়গায় একটা পার্টনারশিপ দরকার ছিল কারণ শিখর এবং শুভমন দুজনেই প্যাভিলিয়নে ফিরেছিলেন সেখানে নেমে তিনি উইকেট ছুড়ে চলে আসেন।। কিন্তু সেখানে দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন সঞ্জু স্যামসন।

সঞ্জু এবং শ্রেয়স একটা দুরন্ত পার্টনারশিপ করেন ৯৪ রানের। যার দৌলতে ভারত একটা কঠিন পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারে। শেষ পর্যন্ত 38 বলে 36 রানে দলের জন্য উইকেট দিয়ে আসেন সঞ্জু তার কারণ ভারতীয় দলের অতিরিক্ত রানের দরকার ছিল সেই জায়গায়। ১৬০ রানে চার উইকেট থেকে ২৫৪ পর্যন্ত ভারতকে পৌঁছে দেই সঞ্জু স্যামসন ও শ্রেয়স।

পাশাপাশি জানিয়ে রাখবো যে এই ম্যাচে সূর্য কুমার যাদব রান করতে পারেননি। তিন বলে চার রান করে আউট হয়েছেন সূর্য।