‘তুমি এখন বিসিসিআই সভাপতি নও,’ সৌরভকে নিয়ে বি’স্ফোরক মন্তব্য করলেন গাভাস্কার!

একটা সময় ভারতীয় দলকে একাধিক ম্যাচ জিতিয়েছেন তারা। দেশের হয়ে ১০ হাজার রানও আছে তাদের ঝুলিতে। আবার তারা দুই জনই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দায়িত্ব সামলেছেন। একজন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এবং অপর জন সুনীল গাভাসকর। বিশ্ব ক্রিকেটের দুই কিংবদন্তি। ক্রিকেটার হলেও আবার তারা দু জনেই ফুটবলের বড় ভক্ত। ২০১৪ সালে আইএসএল যখন শুরু হয়, তখন থেকেই অ্যাটলেটিকো ডি কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের একজন ছিলেন।

পরবর্তীকালে মোহনবাগানের সাথে সংযুক্তিকরন হওয়ার পরও তিনি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। অবশ্য পরে স্বার্থের সংঘাত এড়াতে এটিকের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেন তিনি।শুধু তাই নয়, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে রিয়াল মাদ্রিদ, ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড সহ একাধিক বড় দলের খেলা দেখতে দেখতে দেখা গিয়েছে স্টেডিয়ামে বসে। সম্প্রতি শেষ হওয়া কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালেও মাঠে ছিলেন তিনি। আগাগোড়া ব্রাজিল সমর্থক মহারাজ। কিন্তু আবার দিয়াগো মারাদোনার ভক্ত তিনি।সৌরভের পাশাপাশি সুনীল গাভাসকরও ফুটবলের বড় ভক্ত।গাভাসকর, ইতিমধ্যে বলেছেন, যে তিনি কয়েক বছর ধরে ইপিএল ক্লাব আর্সেনালের গভীর অনুসারী ছিলেন।

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক যতটা ভক্ত নন ততটা তিনি একজন প্রশংসক। কিন্তু গাভাসকর সর্বদা আর্সেনাল এফসির সবচেয়ে বড় দুই কিংবদন্তি থিয়েরি হেনরি এবং ডেনিস বার্গক্যাম্প অনুরাগী।সানি একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘আমি আর্সেনালের ভক্ত। তবে ভক্ত বলা ভুল হবে, অনুগামী বলা যেতে পারে। অনেক দিন ধরেই আমি আর্সেনালের খেলা দেখি। এমনকি মাঝে মাঝে আমি আমার ছেলের সঙ্গে মজা করি। বলতাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফ্যান হয়েও আমি একজন আর্সেনাল ভক্ত। তখন সে জিজ্ঞাসা করে, আমাকে আর্সেনাল টিমের চার জন ফুটবলারের নাম বলার জন্য। আমি বলি থিয়েরি হেনরি এবং ডেনিস বার্গক্যাম্প।

এমনকি আর্সেন ওয়েঙ্গারও আমার নায়ক। হেনরি এমন একজন ছিলেন যাকে দেখে আমি সত্যিই প্রশংসা করতাম এবং তিনিও আমার জন্য একটি শার্টে সই করেছেন।’বার্গক্যাম্প তিনি ৪২৩ ম্যাচে আর্সেনাল ক্লাবের হয়ে ৪২৩ ম্যাচ খেলেছেন এবং ১২০ গোল করেছেন। হেনরি ১৯৯৯ এবং ২০০৭ সালের মধ্যে সব প্রতিযোগিতায় ২২৮ গোল করে দ্বিতীয় স্থানে জায়গা করে নিয়েছিলেন।তবে সেই অনুষ্ঠান চলাকালীন হঠাৎ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে টেনে আনেন সানি। একজন ফুটবল অনুরাগী, সানিকে বলেন, প্রাক্তন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় প্রাক্তন আর্সেনাল অধিনায়কের স্বাক্ষরিত শার্টটি রয়েছে। যা শুনে চুপ করে থাকতে পারেননি গাভাসকর।

তখন সৌরভকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘সৌরভ গাঙ্গুলি, হ্যালো? সেই শার্টটা কোথায়? আমি ১২ জানুয়ারি ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের জন্য কলকাতায় আসছি। এবার আর আমি কোনও অজুহাত চাই না। তুমি এখন আর বিসিসিআই সভাপতি নও। আমাকে এবার একটু সময় দিও। হেনরি আমার জন্য যে শার্টটি সই করেছিলেন সেই শার্টটি খুঁজে বের কর এবং ১২ জানুয়ারি যখন আমি সেখানে যাব তখন দয়া করে আমাকে দিও।’ সৌরভের সঙ্গে এমনই রসিকতা করেছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক।