‘ঠিক যেন সুপারম্যান’ ০.০০৫ সেকেন্ডে অনবদ্য ক্যাচ নিয়ে ইতিহাস করলেন রাহানে !

টেস্ট সিরিজে ইতিমধ্যে জয়লাভ করেছে ভারত যদিও দ্বিতীয় ম্যাচে বৃষ্টির কারণে কোন রকমে হোয়াইটওয়াশ হওয়া থেকে রক্ষা পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।। তবে যেভাবে টেস্ট সিরিজের দাপট দেখিয়েছিল ভারতীয় দল ঠিক সেইভাবেই একই ধরনে শুরু করল ওয়ানডে সিরিজ যেখানে প্রথম ম্যাচেই অনবদ্য জয় লাভ করেছে ভারত।। যার অন্যতম কৃতিত্ব দিতে হয় কুলদীপ যাদব কে।

টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারতীয় ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা। তার এই সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণিত করেন ভারতীয় বোলাররা, প্রথম স্পেলে হার্দিক পান্ডিয়া এবং মুকেশ কুমার দুরন্ত বোলিং করে যার দৌলতে চাপে পড়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে। আর তারপরে যাদের আসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটিং লাইনআপ কে আরো বেশ কিছুটা ধ্বংস করে দেয় এবং এরপর কুলদীপ যতো বেশি লাগাতার চারটি উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দেন।

```

মাত্র তিন ওভার বল করেছেন কুলদীপ যাদব এবং উইকেট পেয়েছেন চারটি অথচ রান দিয়েছেন মাত্র ৬, যদিও কুলদীপ যাদব মনে করেন যে ভারতীয় ফেইস বোলাররা অনেক ভালো বোলিং করেছে যার দৌলাতে নিজের ব্যাটিং লাইন অফ এমনিতেই দুর্বল হয়েছিল এবং নিজের দুরন্ত পারফরমেন্সের কৃতিত্ব তিনি ভারতীয় পেস বোলারদের দিয়েছেন। বিশেষ করে বাংলার বলার মুকেশ কুমার যে ধরনের বোলিং করেছেন তাতে ভীষণ ইমপ্রেস কুলদীপ যাদব এবং তিনি জানিয়েছেন যে ওরা যেভাবে বোলিংটা করেছিল তাতে আমরা অনেকটা খেলাতে এগিয়ে যাই।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১৪ রানে শেষ হয়ে গেলে এর জবাবে ভারতীয় দল ব্যাট করতে নামলে টেস্ট সিরিজের মত ওয়ানডে সিরিজও শুবমন গিল ফ্লপ হয়েছেন এবং মাত্র সাত রানে নিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরতে বাধ্য হয়েছেন। তবে তারপরে তিন নম্বরে বিরাট কোহলির জায়গায় ব্যাট করতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় সূর্য কুমার যাদব কে এবং রোহিত শর্মা বিরাট কোহলি দুজনেই নিজেদেরকে একটু নিচের দিকে রেখেছেন যার কারণে ওপেন করতে নেমেছিলেন ঈশান-কিশন এবং শুভমান গিল।

```

সব মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ভারতীয় দলের প্রথম ম্যাচের এই সহজ জয় কোথাও না কোথাও পরবর্তী সিরিজগুলির জন্য এবং বিশ্বকাপের জন্য এখন থেকে ভারতীয় দলকে অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস যোগাবে।