“ODI সিরিজে ভালো করিনি মেনে নিতে লজ্জা নেই” একা হাতে ম্যাচ জিতিয়ে আবেগপ্রবণ মন্তব্য করলেন সূর্য কুমার!

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে পরাজয়ের পর ভারতীয় দল দাপটের সাথে কাম ব্যাক করেছে এবং তৃতীয় ম্যাচে রীতিমতো দাপটের সাথে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করেছে। বর্তমানে ভারতীয় দলের অন্যতম স্তম্ভ সূর্যকুমার যাদব। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বরাবরই তাঁর রেকর্ড ভালো। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচে অসাধারণ খেলে ম্যাচ জিতিয়েছেন জাতীয় দলকে। ৪৪ বলে‌৮৩ রান করেন তিনি। তবে তারপরেই মন ছুঁয়ে যাওয়া বার্তা দিলেন সূর্য কুমার যাদব।

আর কিছুটা এগোলেই টি-টোয়েন্টিতে চতুর্থতম শতরানে পৌঁছে যেতেন যাদব। বেশ কয়েকটি ম্যাচে ব্যথতার পর তাঁর এই পরফরম্যান্স যেমন প্রংসিত হচ্ছে। তেমনি ভাবেই একদিনের ক্রিকেটে তার খারাপ ফর্ম নিয়েও কথা হচ্ছে। ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরম্যাটে ভাল খেলার পর ওয়ানডে তার কী হয় তা নিয়ে চর্চা হচ্ছে। ম্যাচ জিতানোর ইনিংস খেলার পর তাকে আগামী পরিকল্পনা, বিশ্বকাপের বছরে কী ভাবনা, কোচ রাহুল দ্রাবিড় ও অধিনায়ক রোহিত কী ভাবছে এই সব নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। সব কিছুরই অকপটে উত্তর দিয়েছেন তিনি।ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অল্প রানের জন্য শতরান ফসকান তিনি।

```

এই ম্যআচএ সেঞ্চুরি করতে পারলে ২০ ওভারের খেলায় তার চতুর্থ শতরান হয়ে যেত। এই শতরান না করতে পারার জন্য তার কোন আফসস আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘খেলার সময় রেকর্ডের ব্যাপারে আমার মাথায় সেই ভাবে কিছু ঘোরে না। খেলার সময় দলের যেমন প্রয়োজন হয় তেমনভাবেই খেলি আমি। আমার ব্যক্তিগত ৯৭ বা ৯৮ রানের মাথায় যদি দলের চার বা ছয় রানের প্রয়োজন হয় তাহলে আমি সেটাই মারার চেষ্টা করি। আমি মাইলস্টোনের বিষয়ে বেশি ভাবি না।’এরপরে জানতে চাওয়া হয় যে সমর্থক বা বিশেষজ্ঞদের অভিযোগ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তিনি যেমন খেলেন ওয়ানডে আসলেই তাঁর বিপরীত পারফরম্যান্স আসে তার থেকে। এই বছর যেহেতু বিশ্বকাপ তাই তিনি এই বিষয়ে কী ভাবছেন।

উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আমরা এত খেলেছি যে এটা আমাদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। আমরা জানি কখন কোনও সময় কেমন ভাবে খেলতে হবে। অন্যদিকে ওয়ানডে তুলনামূলক কম খেলা হয়। একদিনের ক্রিকেটটা একটু অন্য রকমের। এখানে এক সময় টেস্ট খেলার মত কিছুটা সময় নিতে হয়। এক সময়ে বল অনুযায়ী খেলতে হয়। তারপর শেষের দিকে চালিয়ে খেলা যায়। টিম ম্যানেজমেন্টও আমাকে ঠিক এইভাবে খেলার কথা বলেছে। ওরা আমার উপর দিয়ে ভরসা দেখাচ্ছে আমি সেটাই বজায় রাখতে চাই। আমি স্বীকার করছি ওডিআইতে আমার পারফরম্যান্স একেবারেই ভালো না।’

```

তৃতীয় ম্যাচে জয়লাভ করলেও এই সিরিজটির অত্যন্ত জটিল একটি অবস্থার মধ্যে রয়েছে যেখানে ভারতীয় দলকে এই সিরিজে জয়লাভ করতে হলে আগামী দুটি ম্যাচেই জিততে হবে।