বৃহস্পতির বিপরীতমুখী অবস্থান নিয়ে যাবে উন্নতির শিখরে, ৫টি রাশির আয় হবে দ্বিগুণ

জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, প্রতিটি গ্রহ একটি নির্দিষ্ট সময় অন্তর নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করে এবং অনেক সময় পিছিয়ে গিয়ে বিপরীতমুখী গতিতে চলে। এই ঘটনার প্রত্যক্ষ প্রভাব প্রতিটি রাশির জাতক জাতিকাদের জীবনে ফেলে। সেই মতই স্থান পরিবর্তন করছেন বৃহস্পতি। আগামী ২৯ জুলাই নিজস্ব রাশি মীন রাশিতে পিছিয়ে যাচ্ছেন বৃহস্পতি। জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুযায়ী, বৃহস্পতিকে জ্ঞান, বৃদ্ধি, শিক্ষক, সন্তান, শিক্ষা, সম্পদ, দান এবং পুণ্যের সঙ্গে সম্পর্কিত। বিপরীতমুখী বৃহস্পতির প্রভাব দেখা যাবে সকল রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য। কিন্তু এরই মধ্যে কয়েকটি রাশি আছে, যাদের জীবনে বৃহস্পতির এই বিপরীতমুখী অবস্থান আয় উন্নতি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। জেনে নেওয়া যাক কোন কোন রাশির ক্ষেত্রে এই অবস্থান বিশেষ লাভ দিতে চলেছে।

বৃষ রাশি:

বৃহস্পতি এই রাশির ক্ষেত্রে জন্মছকের একাদশ ঘরে ফিরে যাচ্ছে। যাকে বলা হয় আয় ও লাভের ঘর। আর তাই এই সময় এই রাশির জাতক জাতিকারা জীবনে আয়ের ভালো বৃদ্ধি পেতে পারেন। এর পাশাপাশি নতুন উপায়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনেও সফল হবেন। এই সময়ে ব্যবসায় ভালো লাভ হতে পারে। তারই সঙ্গে কোনও ব্যবসায়িক চুক্তিও উপকারী প্রমাণিত হতে পারে। আগে কেউ শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করলে তা থেকে এখন পর্যাপ্ত অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। পাশাপাশি এই রাশির জাতক জাতিকাদের কাজের শৈলীতেও উন্নতি হবে, যার কারণে অফিসে খুব প্রশংসা পেতে পারেন। একই সময়ে, যারা নতুন ব্যবসা শুরু করার চেষ্টা করছেন এঁদের জন্য সময়টি লাভজনক হতে চলেছে। এছাড়াও, বৃহস্পতি বৃষ রাশির অষ্টম ঘরের অধিপতি। তাই এই সময়ে গবেষণার ক্ষেত্রে যাঁরা যুক্ত আছেন, তাঁরা সফল হতে পারেন, এছাড়াও যে কোনও দীর্ঘস্থায়ী রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন। এই সময় আরও বেশি বৃহস্পতির আশীর্বাদ পাওয়ার জন্য হলুদ পোখরাজ পরতে পারেন, যা উপকারী রত্ন হতে পারে।

মিথুন রাশি:

বৃহস্পতি বিপরীতমুখী হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এই রাশির জাতক জাতিকাদের জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসতে চলেছে। বৃহস্পতি এই আরশির জন্মছকের দশম ঘরে বিপরীতমুখী অবস্থানে বসতে চলেছে। যাকে চাকরি, ব্যবসা ও কর্মস্থলের ঘর বলা হয়। তাই এই সময়ে এই রাশির জাতক জাতিকারা কোনও নতুন কাজ পেতে পারেন। এর পাশাপাশি এই সময়ে চাকরির ক্ষেত্রে বেতন বৃদ্ধি বা প্রমোশনও হতে পারে। এই সময়ে ব্যবসায় বিশেষ লাভ করতে পারেন। এর মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক সম্পর্কও গড়ে উঠতে পারে এবং ব্যবসা সম্প্রসারণের সম্ভাবনা রয়েছে। একই সঙ্গে যারা মার্কেটিং ও মিডিয়ার ক্ষেত্রে কাজ করছেন তাঁদের জন্য এই সময়টা ভালো যাবে। অন্যদিকে, মিথুনের অধিপতি গ্রহ হলেন গ্রহিদের রাজকুমার বুধ,জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে, বুধ এবং বৃহস্পতি এই দুই গ্রহের মধ্যে মৈত্রী সম্পর্ক রয়েছে। অতএব, এই সময়টি এই রাশির জন্য উপকারী প্রমাণিত হতে পারে। তবে এই সময় পান্না বা গোমেদ পরতে পারেন, যা ভাগ্যবান পাথর হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে।

কর্কট রাশি:

এই রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য বৃহস্পতি গ্রহের বিপরীতমুখী অবস্থান কোনও বরদানের থেকে কম হবে না। কারণ বৃহস্পতি কর্কট রাশির জন্মছকের নবম স্থানে অবস্থিত হতে চলেছেন, যাকে জ্যোতিষশাস্ত্রে বলা হয় সৌভাগ্যের স্থান। অতএব, এই সময় এই রাশির জাতক জাতিকারা ভাগ্যের পূর্ণ সমর্থন পেতে চলেছেন। সেই সঙ্গে বৃহস্পতির প্রভাবে বহুদিন ধরে আটকে থাকা কাজও সম্পন্ন হয়ে উঠতে শুরু করবে। একই সঙ্গে এই রাশির ব্যক্তিরা ব্যবসার ক্ষেত্রে ছোট বা বড় ভ্রমণ করতে পারেন, যা আগামী সময়ে উপকারী হতে পারে। যাদের ব্যবসা বিদেশের কোনও কোম্পানির সঙ্গে সম্পর্কিত তাঁরা এই সময় ভাল লাভ করতে পারেন।অন্যদিকে, যাদের ব্যবসা খাবার, হোটেল, রেস্তোরাঁ ইত্যাদির সঙ্গে জড়িত তাঁরা এই সময় ভালো লাভ পাবেন। এই রাশির অধিপতি হলেন চন্দ্র এবং জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে, চন্দ্র এবং বৃহস্পতি মিত্র গ্রহ। অতএব, এই পরিবর্তন এই রাশির জন্য বেশ শুভ হতে পারে।

কুম্ভ রাশি:

কুম্ভ রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য বৃহস্পতির এই বিপরীতমুখী অবস্থান খুবই ভালো ফল দিতে চলেছে। এই রাশির জন্মছকে বৃহস্পতি উন্নতির দশম ঘরে অবস্থিত হবেন, যার ফলে এই সময় যে কোনও ক্ষেত্রেই আয় ও উন্নতি বৃদ্ধি হতে চলেছে। এই রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য আগামী দিনে আরও ভালো কিছু চাকরির অফার আসতে পারে যা জীবন পরিবর্তন করে দেবে। শুধু তাই নয়, এই সময় এই রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য খুবই মুনাফা দিতে চলেছে যে কোনও ব্যবসা। মূলত শাড়ি বা খাবারের ব্যবসা যারা করেন তাঁদের জন্য খুব লাভদায়ী হতে চলেছে এই সময়। আয়ের উৎস বৃদ্ধি পাবে। আগামী দিনের জন্য পর্যাপ্ত সঞ্চয় করতেও সক্ষম হবেন। সার্বিক ভাবে খুব ভালো যাবে এই সময়।